ধামইরহাটে ইউপি সদস্যের মারপিটে নারীসহ আহত ৪

আপডেট: নভেম্বর ২০, ২০১৯, ১:১৩ পূর্বাহ্ণ

ধামইরহাট প্রতিনিধি


নওগাঁর ধামইরহাটে এক ইউপি সদস্যের মারপিটে নারীসহ চারজন আহত হয়েছে। আহতরা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে ওই ইউপি সদস্যের শাস্তি চেয়ে ভুক্তভোগি পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে ইউপি সদস্য কিনু মন্ডল পলাতক রয়েছে।
ধামইরহাট থানায় এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার উমার ইউনিয়নের অন্তর্গত কাদিপুর গ্রামের তায়েজ উদ্দিনের খলিয়ানে ওই গ্রামের একটি পুকুরে সরকারিভাবে ঘাট নির্মাণকে কেন্দ্র করে একটি শালিস বৈঠক বসে। শালিসে উমার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো.নুরুজ্জামান, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো.কিনু মিয়াসহ (৪৩) গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। ঘাট নির্মাণ পুকুরের কোথায় হবে এ নিয়ে গন্ডগোল দেখা দেয়। এক পর্যায়ে কিনু মেম্বার ও তার লোকজন তায়েজ উদ্দিনকে মারপিট শুরু করে। তায়েজ উদ্দিনের চিৎকার শুনে তার স্ত্রী হামিদা বেগম (৪৩), মেয়ে তানিয়া (২১) এবং পুত্রবধু সাবিনা (২৪) এগিয়ে আসে। এসময় কিনু মেম্বারের লোকজন তাদেরকে মারপিট করে। সবচেয়ে বেশি আঘাত করে তায়েজ উদ্দিন ও তার স্ত্রী হামিদা বেগমকে। বর্তমানে হামিদা বেগম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে। বাকিদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। কিনু মেম্বার কাদিপুর গ্রামের মৃত মোকলেছ আলীর ছেলে।
এব্যাপারে উমার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো.নুরুজ্জামান বলেন, বৈঠক চলাকালে ইউপি সদস্য কিনু উত্তেজিত হয়ে তায়েজ উদ্দিনকে আক্রমণ করে। নিঃসন্দেহে সে অপরাধমূলক কাজ করেছেন। বিচারক হয়ে নিজে আইন লঙ্ঘন করেছেন।
ধামইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.জাকিরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় তায়েজ উদ্দিন বাদী হয়ে ইউপি সদস্য কিনুসহ ৪ জনকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেছে। আসামী কিনু মেম্বারকে ধরার জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ