নখে রঙিন নকশা

আপডেট: জুলাই ১৬, ২০১৭, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


প্রাচীন কালে মেহেদি পাতায় নখ রাঙানোই ছিলো নখের একমাত্র সাজ। এর পরের সময়ে ব্যবহার করা হতো নানা রঙ যার মধ্যে থাকত আলতা। কালের বিবর্তনে আর সময়ের মায়াবী আবরণে সেই সাজ তার রূপ পাল্টিয়েছে। এখনকার দিনে তাই নেইলপলিশ নখের সাজের অন্যান্য মাধ্যম। নখ রাঙাতে এখন অনেকেই বেছে নিচ্ছেন কমলা, ম্যাজেন্টা, নীল, রেডিয়াম, লাল ইত্যাদি উজ্জ্বল রঙের নেইলপালিশ।
সাধারণ নকশার নেইল আর্টের ট্রেন্ড চলছে এখন। ফ্রেঞ্চ ম্যানিকিওরও করাচ্ছেন কেউ কেউ। তবে সাদা-গোলাপি বাদেও অন্য নানা রঙে তা করা হচ্ছে। এখন বেশিরভাগ সময়ই পুরো নখে নকশা না করে এক কোনায় অথবা নখের অর্ধেক অংশ জুড়ে নেইল আর্ট করার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। আবার শুধু একটি নখে ডিজাইন করে বাকিগুলো এক রঙে রাঙানোর স্টাইলও নজরে পড়ছে। কেউ কেউ আবার একেক নখের জন্য বেছে নিচ্ছেন একেক ডিজাইন। পোলকা ডট, জ্যামিতিক নকশা এবং কাগজের ছাপের ট্রেন্ডও চলছে।
নখে কী ধরনের ডিজাইন করা হবে, তা অনেকটাই নির্ভর করে নখের আকৃতি ও হাত-পায়ের ধরনের ওপর। স্কয়ার আকারের নখে যেমন নকশা ভালো লাগবে তা চোখা ও লম্বাটে আকৃতির নখে না-ও মানাতে পারে। বর্তমানে লম্বা সুচালো নখের চল ধীরে ধীরে চলে যাচ্ছে। এখন ছোট নখের চল বাড়ছে। সে ক্ষেত্রে ডিম্বাকৃতি, চারকোনা ও স্কোভাল আকৃতিতে ছোট করে কাটা নখের চল থাকবে। এ বছর নখের জন্য ‘স্কোভাল’ আকৃতিটি নতুন। এটি অনেকটা চারকোনা (স্কয়ার) ও ডিম্বাকৃতির (ওভাল) মিশেল। নখের এই আকৃতিটি দেখতে প্রায় চতুষ্কোণের মতো কিন্তু প্রান্তগুলো থাকবে বৃত্তাকার। এই আকৃতিটি ছোট নখের জন্য বেশ সুবিধাজনক বটে।
নখের আর্টে যুক্ত হয়েছে নানা ধরন, যার মধ্য আছে একুরিয়াম নেইল আর্ট। এর জন্য নখের যে পাশ ফাঁকা সেখান থেকে নখের ভিতর ছোটো ছোটো চুমকি, পুঁতি, গুড়াজড়ি অল্প করে লাগিয়ে নিন। ড্রপার দিয়ে নখের ভিতর কয়েক ফোঁটা পানি দিন এর পরে তাতে তুলিতে অল্প গ্লু নিয়ে ফাঁকাটুকু আটকে দিন। ব্যস তৈরি হয়ে গেল একুরিয়াম নেইল আর্ট।
ওয়াটার মার্বেল নেইল আর্ট করতে চাইলে নখে বেইস কোট লাগিয়ে নিন। স্কচ টেপ বড় বড় টুকরা করে কেটে নিন। টুকরা করা স্কচ টেপ দিয়ে নখের চারপাশে থাকা আঙুলের চামড়া ভালো করে পেচিয়ে নিন, যাতে নেইল পলিশ লেগে না যায়। কাপে নরমাল পানি নিন। নেইল পলিশ একে ফোটা করে নিয়ে পানিতে ফেলুন। প্রথম ফোটা ছড়িয়ে গেলেও পরেরগুলো কমতে থাকবে। কাঠি দিয়ে পানিতে থাকা রঙের ওপর ইচ্ছামতো ডিজাইন করুন। স্কচ টেপ প্যাঁচানো আঙুল ডিজাইন করা পানির মধ্যে দিয়ে রাখুন ও চারপাশের বাড়তি নেইল পলিশ কাঠি দিয়ে সরিয়ে ফেলুন।
স্টাম্পিং নেইল আর্টের ক্ষেত্রে, নখের ওপর বেসকোট পলিশ লাগান। টেমপ্লেটের যে কোনো একটি ডিজাইন বেছে, তাতে পছন্দমতো রঙের নেইল পলিশ লাগিয় নিন। নেইল পলিশ আবশ্যই ঘন হতে হবে। একটি স্ক্র্যাপার হাতে নিন। স্ক্র্যাপারটি দিয়ে টেমপ্লেটের ওপর দেয়া নেইল পলিশ খুব দ্রুত ডান থেকে বামে টেনে নিয়ে যান। স্টাম্পার দিয়ে টেমপ্লেটের ওপর টিপুন, এটাতে নকশা উঠে আসবে। নখে নকশা দিতে স্ট্যাম্পারটি দ্রুত নখের ওপর বসান এবং একটু চাপ দিয়ে ধরে ডান থেকে বামে ঘুরিয়ে আনুন। স্কচ টেপ নেইল আর্ট। এতে প্রথমে নখে বেইস কোট নেইল পলিশ লাগান। স্কচ টেপ কাচি দিয়ে কেটে যে কোনো নকশা করে নখে লাগিয়ে দিন। অন্য আরেকটি রঙের নেইল পলিশ দিয়ে স্কচ টেপের ওপর থেকে ফাঁকা অংশ ভরিয়ে নিন। স্কচ টেপ দ্রুত তুলে ফেলুন।
যমুনা ফিউচার পার্ক, নিউমার্কেট, রাজলক্ষ্মী, মৌচাক, ইস্টান প্লাজাসহ বিভিন্ন কসমেটিকসের দোকানে পাবেন নখ সাজানোর সব উপকরণ। নখ স্ট্যাম্পিং করার জন্য নেইল পলিশ, স্ট্যাম্প স্টেপার প্লেট, ডিজাইন প্লেটের সেট পাবেন ৮৯৫ টাকায়। নকশার সংখ্যাভেদে পাঁচ থেকে আট হাজার টাকায়ও পেতে পারেন এটি। পাথরের বাক্স ১৭৫-৫৯৫, স্টিকার ২০০-২৭৫, কৃত্রিম নখ ৩২৫, নকশাসহ কৃত্রিম নখ ৫৯৫-১০০০ টাকায়।