নগরীতে দুই শিফটে চলবে অটোরিকশা ও রিকশা || আগামি ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে

আপডেট: এপ্রিল ১, ২০১৯, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


যানজট নিরসনে নগরীতে দুই শিফটে চলবে অটোরিকশা ও রিকশা-সোনার দেশ

নগরীর সব অটোরিকশা ও রিকশাকে দুই শিফটের আওতায় নিয়ে আসছে সিটি করপোরেশন। যানজট নিরসনে এ উদ্যোগ গ্রহণ করছে তারা। এইজন্য অটোরিকশা ও রিকশাগুলোকে নিবন্ধন করা হবে। নিবন্ধিত কার্ডের জোড় বিজোড় অনুযায়ী যানবাহনগুলোকে লাল ও সবুজ রঙে ভাগ করা হবে। এই লাল ও সবুজ রঙের যানবাহনগুলোই ক্রমানুসারে সকালে ও বিকেলে চলাচল করবে। তবে রাতে উভয় রঙের যানবাহনই চলতে পারবে। আগামি ১ জুলাই থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।
গতকাল রোববার সকালে নগরীতে চলাচলকারী অটোরিকশা ও চার্জার রিকশা চলাচল নিয়ন্ত্রণ ও শৃঙ্খলা আনয়নের বিষয়ে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভাটি নগরভবনের সরিৎ দত্ত গুপ্ত সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।
এ সময় মেয়র বলেন, সিটি করপোরেশনের যানজট নিরসনে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। অটোরিকশা ও চার্জার রিকশা নিয়ন্ত্রণে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে নীতিমালা তৈরি করা হয়েছে। এটি বাস্তবায়নে সবার সহযোগিতা কামনা করছি।
সভায় যানজট নিরসনে অটোরিকশা চার্জার রিকশা চলাচলে নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়। সভায় জানানো হয়, আগামি ১ জুলাই থেকে ৬ আসন বিশিষ্ট অটোরিকশা ও ২ আসন বিশিষ্ট রিকশার জন্য মালিক ও চালককে পৃথক পৃথক নিবন্ধন কার্ড গ্রহণ করতে হবে। নিবন্ধন কার্ডে নম্বর অনুযায়ী বিজোড় নম্বর লাল রং ও জোড় নম্বর সবুজ রঙের করা হবে। মাসের প্রথম সপ্তাহে সকাল ৬টা হতে দুপুর ২টা পর্যন্ত লাল রঙের অটোরিকশা এবং দুপুর আড়াইটা হতে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত সবুজ রঙের অটোরিকশা চলবে। শুক্রবার ছুটির দিনসহ প্রতিদিন রাত্রি ১০টা হতে সকাল ৬টা পর্যন্ত উভয় রঙের অটোরিকশা চলবে। রুট প্লান অনুযায়ী নগরীতে এ জাতীয় যানবাহন চলাচল করবে। অটোরিকশা রাস্তায় চলাচলের ক্ষেত্রে গাড়ি চালকদের নির্দিষ্ট পোশাক পরিধান করতে হবে। বিআরটিএর সহায়তায় চালকদের ট্রাফিক আইন সচেতনতায় প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।
রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবুর সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন আরএমপির ডিসি (ট্রাফিক) অনির্বান চাকমা, বিআরটিএ’র সহকারী পরিচালক কামরুল হাসান। সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, রাসিকের সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও ৯নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজাউননবী দুদু, ১১নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম তজু, ২নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, ২০নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রবিউল ইসলাম, সচিব রেজাউল করিম, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সমর কুমার পাল, রাজস্ব কর্মকর্তা আবু সালেহ নুর-ই-সাঈদ, সহকারী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) আহমেদ আল মঈন পরাগ, ট্যাক্সেশন কর্মকর্তা (লাইসেন্স) সারোয়ার হোসেন, ইজিবাইক মালিক সমিতির সভাপতি শরিফুল ইসলাম সাগর, সহ-সভাপতি খন্দকার আরশাদ হোসেন আসাদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ রিমন, সহ: সাধারণ সম্পাদক রনি, নগর ইজিবাইক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রাশেদুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান রিমন, সহ-সভাপতি শহিদুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক সিদ্দিক, সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল, কোষাধ্যক্ষ বাবু, সড়ক সম্পাদক মানিক, সদস্য সিজান প্রমুখ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ