নগরীতে ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা, ফলের ফরমালিন পরীক্ষা

আপডেট: মে ১৫, ২০১৯, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নগরীতে ফলের ফরমালিন পরীক্ষা করেন বিএসটিআই’র কর্মকর্তাবৃন্দ সোনার দেশ

রাজশাহী ও বগুড়া জেলায় বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন (বিএসটিআই) ও জেলা প্রশাসন এবং ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের নেতৃত্বে পৃথক দুইটি সার্ভিল্যান্স অভিযান ও মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার এই অভিযানে আটটি ফলের দোকানে ফলমূলে ফরমালিনের উপস্থিতি পরীক্ষা এবং বটতলা বাজার, সাগরপাড়া এলাকায় ওজনে কারচুপি রোধে বাজার মনিটরিং করা হয়। উপ-পরিচালক (মেট্রোলজি) ও আঞ্চলিক অফিস প্রধান খাইরুল ইসলাম জানান, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্যদ্রব্য পরিবেশন করায় দুইটি প্রতিষ্ঠানকে ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এর মধ্যে রাজশাহীর বিসিক নগরীর মেসার্স প্রাণ এগ্রো লি. কে ৪০ হাজার, মেসার্স রাতুল বেকারিকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং বগুড়ার দুপচাচিয়ার চৌমহুনীতে মেসার্স এসএ লাচ্ছা সেমাই ও হাসপাতাল গেইটের মেসার্স রিপন হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টকে সিএম লাইসেন্স বিহীন পণ্য বিক্রয় করার অভিযোগে, চৌমহুনীর মেসার্স জাহিদ ট্রেডার্সকে পরিমাপে কম প্রদানের অপরাধে জরিমানা করা হয়। জনস্বার্থে বিএসটিআই’র এরূপ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।
এদিকে নগরীতে আপেল ও কমলাসহ বিভিন্ন ধরণের ফলের মধ্যে ফরমালিন মেশানো আছে কিনা তা পরীক্ষা করেছে বিএসটিআই। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত নগরীর রেলগেট ও সাহেব বাজারে ফলের ফরমালিন পরীক্ষা করে বিএসটিআই’র টিম।
প্রথমে বিএসটিআই’র টিম নগরীর রেলগেটের ফলের দোকানের আপেল, কমলা, আঙ্গুরসহ বিভিন্ন ফল পরীক্ষা করেন। পরীক্ষা করে কোনো ফরমালিন পায়নি টিমটি। এরপর নগরীর সাহেব বাজার বড় মসজিদের সামনের ফুটপাতের ফলের দোকানগুলোতে ফরমালিন পরীক্ষা করে দলটি। সেখানেও ফলের মধ্যে কোন ফরমালিন পায়নি তারা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বিএসটিআই’র প্রকৌশলী আসলাম শেখ, ফিল্ড অফিসার গোবিন্দ কুমার ঘোষ, পরীক্ষক উজ্জল কুমার সিনহা ও পরিদর্শক শাহ আলম পলাশ খান প্রমূখ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ