নদী দখল ও দুষণ রোধ এবং নদীর স্বাভাবিক প্রবাহ নিশ্চিতের দাবিতে মানববন্ধন

আপডেট: এপ্রিল ২০, ২০১৯, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


নগরীতে মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীরা সোনার দেশ

নদী দখল ও দুষণ রোধ এবং নদীর স্বাভাবিক প্রবাহ নিশ্চিত করার দাবিতে নগরীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার পরিবেশবাদী ছাত্রযুব সংগঠন ‘গ্রিন ভয়েস’র উদ্যোগে দেশব্যাপি এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় সকাল ১০টায় নগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে ‘গ্রিন ভয়েস’ রাজশাহী বিভাগীয় কমিটি এ মানববন্ধন পালন করে।
মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) রাজশাহী বিভাগীয় কমিটির সভাপতি ও রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান। ‘গ্রিন ভয়েস’ সদস্য আব্দুর রহিমের পরিচালনায় মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন, রাজশাহী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আসলাম-উদ-দৌলা, গ্রিন ভয়েস রাজশাহী বিভাগীয় প্রধান সমন্বয়ক রুবেল হক, সহ-সমন্বয়ক জহুরুল ইসলাম, প্রসেনজিৎ স্বর্ণকার, সদস্য ইশরাত জাহান, হীরা বালা, বাঁধন প্রমূখ।
নদী বিপর্যয়ের কারণ উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, উজানের পানির প্রবাহ হ্রাস, পলি পতন, নদী-ভাঙন, বেষ্টনী স্থাপনা (ঈড়ৎফড়হ ঝঃৎঁপঃঁৎব), নদী দখল, নদী দূষণ ইত্যাদি নদী ও পরিবেশ বিপর্যয়ের অন্যতম কারণ। নদীরতীরে রাষ্ট্রীয়, প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে দখল ও স্থাপনা নির্মাণ হয়েছে অবারিতভাবে।
উচ্চ আদালতের রায় মতে নদীর তলা (শীতকালের পানি স্থল), তট (বর্ষা কালের পানি স্থল) ও পাড় (১৫০ ফুট মাটি যেখানে কোন দিনই পানি উঠেনা) এই জায়গাগুলো নদীর অন্তর্ভুক্ত। এসব জায়গাতে স্থাপনা নির্মাণ নিষিদ্ধ। অনেক ক্ষেত্রে সরকারী কর্মকর্তারা আইন অমান্য করে সরকারি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।
নদী রক্ষায় সরকারের উদাসীনতার কথা উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, নদীর সকল সমস্যায় করণীয় হিসেবে দীর্ঘ দেড় যুগ আলোচনার পর কয়েক বছর আগে গৃহিত হয়েছে জাতিসংঘ পানিপ্রবাহ আইন ১৯৯৭। যা অভ্যন্তরীণ, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক নদীসমূহের সকল প্রকার সংকট নিরসন সম্ভব। বাংলাদেশ ও ভারতের সরকারের এটি পছন্দ নয়, তারা এটি অনুস্বাক্ষর করেন নি। অথচ আন্তঃদেশীয় যেকোনো নদী সমস্যা নিরসনে এটিই একমাত্র উপায়।
বক্তারা বলেন, উজানের রাষ্ট্রসমূহের সাথে নদীর পানি ব্যবহার প্রশ্নে সংকট, দেশের অভ্যন্তরে ভুল প্রকৌশল কার্যক্রম জনিত কারণে বাংলাদেশের সকল নদী আজ ধ্বংসের মুখে। ভুল বিদেশি পরামর্শে নদীর উপর অজ¯্র স্লুইসগেইট, মাটির বাঁধ, খাটো দৈর্ঘ্যের সেতু নির্মাণ করে নদী ধ্বংস করেছে সরকারি প্রশাসন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ