নববর্ষের ভোরে

আপডেট: এপ্রিল ১৪, ২০১৮, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

এস এম তিতুমীর


পান্তা পেঁয়াজ লঙ্কা সবুজ
সানকি সখের হাড়ি
মেলায় ওঠে রঙের হরিণ
মাটির ঘোড়ার গাড়ি।

রঙিন ঘুড়ির রঙিন সুতোয়
রঙিন লেজের সারি
মাড়ের গোলাই মাঞ্জা দেয়া
লাটাই বান্ধা তারই।

হরেক রকম শোলার কুমির
শোলার দোয়েল টিয়ে
বাঘের মুখোশ বিড়াল মাসি
তাও আছে ভাব নিয়ে।

লক্ষ্মী পেঁচার মুখেও আবীর
গাল ভরা তার হাসি
মেলায় তাদের দেখতে পাবে
আসছে হাওয়াই ভাসি।

দাঁতাল হাতির লম্বা সুঁড়েও
বান্ধা তালের পাখা
মাহুত মশাই খাচ্ছে হাওয়া
দুলিয়ে দেহের শাখা।

ডুগডুগিতে নাচছে বানর
বীণ-বেহুলার ঘর
সাপের ঝাঁপি খুলছে ওঝা
মন্ত্রেরও ওপর।

রঙিন বেলুন গ্যাসের ঈগল
ফিরকি কাগজ কাঠি
তাই পেতে যে খোকা-খুকুর
পা ছোঁইনা মাটি।

পুতুল নাচের আসর আছে
মেলার মেলা ঢং
রঙ-বেরঙের পোশাক পরে
সার্কাসেরই সং।

বাংলা আমার হাজার প্রাণের
ত্যাগের মাতৃভূমি
এই ভূমিতে নেই ভেদাভেদ
সমান আমি তুমি।

তাইতো মাতি আমরা সবাই
প্রথম বোশেখ ভোরে
এক হয়ে যায় আকাশ-পাতাল
সুন্দরও সুন্দরে।