নলডাঙ্গা উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদের অপসারণ দাবি

আপডেট: June 2, 2020, 2:19 pm

নাটোর প্রতিনিধি :


নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আসাদুজ্জামান আসাদের চেয়ারম্যান পদ থেকে বরখাস্তসহ গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের জনসাধারণ।
মঙ্গলবার (০২ জুন) সকাল সাড়ে ১০ টার সময় নলডাঙ্গা পৌরসভা মোড়ে এ মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রামক রোধে রাষ্ট্র ঘোষিত ধর্ম মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনের বিরোধিতা করাসহ ধর্মমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তি করার অভিযোগে তার অপসারণ, গ্রেফতার ও বরখাস্ত চেয়ে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।
মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুস শুকুর, সাধারণ সম্পাদক মুসফিকুর রহমান মুকু, জেলা পরিষদ সদস্য রঈস উদ্দিন রুবেল, মহিলা সদস্য আঞ্জুয়ারা পারভিন রত্না, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম সরদার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শিরিন আক্তার, পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি শরিফুল ইসলাম পিয়াস, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি খালিদ মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন নয়ন প্রমুখ।
অপরদিকে নাটোর জেরা সর্বস্তরের ইমাম ও ওলামায়ে কেরামগণের পক্ষে গোলাম ম্স্তোফা ও আব্দুল খালেক স্বাক্ষরিত স্মারকলিপি জেলা প্রশসাকের মাধ্যমে ধর্মমন্ত্রীকে প্রদান করা হয়। স্মারকরিপিতে বলা হয় আসাদুজ্জামান আসাদ গত ২৩ এপ্রিল তার ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে বলেন, ‘ফরজ নামাজে ৫ জন, তারাবিহতে ১২ জন, হাটে বাজারে হাজার হাজার জন কি সুন্দর ধর্মমন্ত্রী।’ ১৬ মে বলেন, ‘আবার বলতে বাধ্য হলাম হাট বাজার ঈদ সব চলছে, শুধু ধর্র্ম পালনে ঈদের জামাত মসজিদে। আমি অবাক হই।’
এব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিনি নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে সরকারের একটি অংশ। ধর্ম মন্ত্রীকে নিয়ে কটাক্ষ করার প্রশ্নই আসে না। আসলে সোমবার উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সদস্য ইউসুফ আলী টুটুলকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হাতপায়ের রগ কেটে দেয়ার প্রতিবাদে আওয়ামীলীগের অভ্যন্তরে কিছু নেতাকে গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করে এলাকাবাসী। সেই ঘটনার পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ওই সকল সন্ত্রাসীদের বাঁচাতেই এই মানববন্ধন করা হয়েছে।