নাটোরে আ’লীগের দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে একাংশকে বাধা প্রদান

আপডেট: জানুয়ারি ৬, ২০১৮, ১:০০ পূর্বাহ্ণ

নাটোর অফিস


সংবিধান সুরক্ষা ও গণতন্ত্র রক্ষা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশ ও শোভাযাত্রায় জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও নাটোর পৌরসভার মেয়র উমা চৌধুরী জলি এবং জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজানসহ আওয়ামী লীগের একাংশকে অংশগ্রহণে বাধা দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুলের সমর্থকরা এ বাধা দিয়েছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়। এনিয়ে দলটির মধ্যে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।
গতকাল শুক্রবার রাত ৮টার দিকে নাটোর পৌরসভার সামনে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজানের দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও নাটোর পৌরসভার মেয়র উমা চৌধুরী জলি, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক চিত্তরঞ্জন সাহা, জেলা যুবলীগের সভাপতি বাসিরুর রহমান খাঁন এহিয়া চৌধুরী, জেলা পরিষদের সদস্য ও ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিউল আযম স্বপন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবদুল্লাহ আল সাকিব বাকী প্রমুখ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নাটোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান বলেন, ২০১৩ সালে বিএনপি জামায়াতের দেশব্যাপি জ্বালাও-পোড়াও ও নৈরাজ্যকর পরিস্থিতিতে বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে ২০১৪ সােেলর ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র ও সংবিধান সুরক্ষা হয়। তারই ফলশ্রুতিতে আওয়ামী লীগের ৫ জানুয়ারির কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করার জন্য শুত্রুবার বিকেল বেলা ৪টার দিকে জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মেয়র উমা চৌধুরী জলি এবং জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজান চেয়ারম্যান দুই শতাধিক নেতাকর্মী নিয়ে শহরের কান্দিভিটুয়া এলাকায় জেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে হাজির হন। এসময় আওয়ামী লীগ নেতা শামছুল ইসলাম ও কামরুল ইসলাম আমাদেরকে ডেকে কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ না করার জন্য বাধা প্রদান করেন। এসময় তারা বলেন, এমপি শিমুলের নির্দেশ রয়েছে, সে কর্মসূচির আয়োজন করেছে, তোমরা এই অফিসে থাকলে আমরা প্রোগ্রাম করবো না। এহেন সংগঠনবিরোধী কর্মকা-ের মাধ্যমে নাটোরের মুজিবপ্রেমী জনতার মাঝে ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নাটোর জেলা শাখাসহ সকল অঙ্গসংগঠনের মাঝে বিভেদ সৃষ্টি করছে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদর্শ, লক্ষ্য ও উদ্যেশ্য বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় ওই সংবাদ সম্মেলনে। এসময় নেতৃবৃন্দ বলেন, বিএনপির সময়ে দুলুর রাজ্যে সবাই বোবা ছিল, এখন সাংসদ শিমুলের রাজ্যে কেউ চোখেও দেখে না, কানেও শোনে না, কথাও বলে না।
নাটোর পৌরসভার মেয়র উমা চৌধুরী জলি অভিযোগ করে বলেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করার জন্য আমি ও উপজেলা চেয়ারম্যান অস্থায়ী কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের নিয়ে হাজির হই। কিন্তু এসময় আওয়ামী লীগ নেতা শামছুল ইসলাম ও কামরুল ইসলাম আমাদেরকে ডেকে কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ না করার জন্য বাধা প্রদান করেন। এমপি শিমুলের নির্দেশ রয়েছে, তিনি কর্মসূচির আয়োজন করেছেন, আমরা সেখানে থাকলে তিনি প্রোগ্রাম করবেন না। দলীয় কর্মসূচিতে বাধা পেয়ে আমরা দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে অফিস চত্বর থেকে বের হয়ে আসি।
জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজান বলেন, এমপি শফিকুল ইসলাম শিমুল দলীয় কর্মকা-েও একক আধিপত্য বিস্তার করেছে। দলীয় কর্মসূচিতে আমরা অংশগ্রহণ করলেও এমপির নির্দেশে কর্মসূচিতে আমাদের অংশগ্রহণ করতে দেয়া হয় নি। বিষয়টি আমরা দলের হাইকমান্ডকে জানাবো।
এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি কামরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, তিনি কিছুই জানেন না, সামছুল ইসলাম বলতে পারবেন। পরে সামসুল ইসলামের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তার নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়। তবে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসম্পাদক সৈয়দ গোলাম মোর্ত্তজা বাবলু বলেন, বিভিন্ন সময় জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি উমা চৌধুরী এবং যুগ্মসম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজান নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুল সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন। এ অবস্থায় অনুষ্ঠানে এই দুইজন উপস্থিত থাকলে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে। এ কারণে তাদের অনুষ্ঠানে থাকতে নিষেধ করা হয়েছিল।
এদিকে এ ঘটনায় সংবাদ সম্মেলন করেছে নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের একাংশ।
অপরদিকে শহরের কান্দিভিটুয়া অস্থায়ী দলীয় কার্যালয় থেকে একটি বিজয় মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কানাইখালি পুরাতন বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে সমাবেশে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল আওয়ালের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট শামছুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোর্ত্তজা আলী বাবলুসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। বক্তারা বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকা-সহ নাটোরের উন্নয়ন তুলে ধরেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ