নাটোরে বাণিজ্যিক প্লটে আবাসন || আবাসন প্লটগুলো বাতিল করা হোক

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৭, ১:১১ পূর্বাহ্ণ

ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের বিকাশের লক্ষ্যে স্থাপিত উত্তরাঞ্চলের ১৭টি বিসিক শিল্প নগরী গড়ে তোলা হয়েছে। আর ১৭টির মধ্যে নাটোর বিসিক শিল্প নগরীর বাণিজ্যিক প্লট আবাসিক খাতে ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। শিল্পনগরীর মধ্যে আবাসনের কোন অনুমতি না থাকলেও কতিপয় কর্মকর্তার যোগসাজসে অনিয়মই নিয়মে পরিণত হয়েছে। এটা একেবারে অন্যায় করা হয়েছে। শিল্প এলাকায় কালকারখানা গড়ে উঠবে। কিন্তু তা না করে মানুষের বসবাসের জন্য নিয়মভঙ্গ করে আবাসন প্লট দেওয়া হয়েছে। এর ফলে বিসিক এলাকায় প্রতিনিয়িত নতুন নতুন শিল্প-কলকারখানা গড়ে উঠার কথা থাকলেও সেখানে নিয়ম নীতিকে তোয়াক্কা না করে গড়ে উঠেছে আবাসিক ভবন। তাই নির্মিত কিংবা এখনও নির্মাণ হয়নি। সেসব আবাসন প্লটগুলোকে বাতিল করা হোক। এক্ষেত্রে বিসিকের উধ্বতন কর্তৃপক্ষকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা উচিত। যে-ই কমিটি আবাসন প্লটগুলো বাদ দিয়ে প্রকৃত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের বরাদ্দ দেওয়ার ব্যবস্থা করবে।
নাটোরে এই শিল্পনগরীতে কোন রকম শিল্প কারখানা নেই, অথচ পরিবার পরিজন নিয়ে আবাসিক এলাকার মতো দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছেন অনেকেই। আবার একই প্লটের নিচে ফ্যাক্টরিতে প্রোডাক্ট তৈরি হচ্ছে এবং ওপরে আবাসিক ভবন করা হয়েছে। কিন্তু স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন ঝুকি থেকে যায় এসব ভবনে বসবাসকারীদের। তাই বিসিক এলাকায় বসবাস একেবারে বন্ধ করে দিতে হবে। শুধু পণ্য তৈরি করতে হবে। এসব দিকগুলোকে বিসিক কর্তৃপক্ষকে নজর দিতে হবে।
আবার এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক ও বিসিক শিল্প নগরীর সভাপতি শাহিনা খাতুন বলেছেন, অনেকটা স্বেচ্ছাচারী মনোভাব নিয়েই কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে নাটোর বিসিক শিল্প নগরীর স্থানীয় কর্মকর্তারা। নাটোরে আসার একবছর হলেও বিসিক কর্তৃপক্ষ তার সঙ্গে পরিচয় হওয়া ছাড়া কোন আলোচনা করে নি। কোন মিটিংও করে নি। বাণিজ্যিক প্লট আবাসিক খাতে ব্যবহারের বিষয়টি তিনি জেনেছেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন তিনি। এটা উচিত হয়নি স্থানীয় বিসিক কর্মকর্তাদের। কারণ একটি জেলার সরকারি পর্যায়ে অভিভাবক জেলা প্রশাসক। আর অভিভাবকের সাথে আলোচনা না করে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে স্থানীয় বিসিক কর্মকর্তারা। নিজেদের স্বার্থে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ না করে ভিন্নখাতে বিসিক শিল্পনগরীকে ব্যবহার করছে। তাই সংশ্লিষ্ট বিসিক কর্মকর্তাসহ অন্যদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে শাস্তিমুলক ব্যবস্থাগ্রহণ করতে হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ