নাটোরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান সহকারীকে মারপিট করেছে ঠিকাদার

আপডেট: June 3, 2020, 1:12 pm

নাটোর অফিস:


বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান সহকারী শহিদুল ইসলামকে মারপিট করেছেন ঠিকাদার এমদাদুল হক হীরা। ওষুধ সরবরাহের জন্য ৭০ লাখ টাকার টেন্ডার হাত ছাড়া হওয়ায় ক্ষোভ ঝাড়েন তিনি ওই সরকারি কর্মচারীর ওপর। মঙ্গলবার (২ জুন) দুপুরে নাটোর সিভিল সার্জনের কার্যালয়ের এই ঘটনা ঘটে। এসময় সিভিল সার্জন তার কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন।
জানা যায়, বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওষুধ সরবরাহের জন্য ৭০ লাখ টাকার একটি টেন্ডার আহবান করা হয়। এই টেন্ডারে ঠিকাদার ইমদাদুল হক হীরা সহ মোট ৬জন ঠিকাদার অংশ গ্রহণ করেন।
কিন্তু টেন্ডারে ওষুধ সরবরাহের কাজটি পায় পাবনার মেসার্স আহনাফ এন্টার প্রাইজ এবং আর জেড এস এন্টার প্রাইজ। এরপরেই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন ঠিকাদার হীরা।
বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান সহকারী শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আজ মঙ্গলবার দুপুরে অফিসিয়াল কাজে সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে আসেন। সেখানেই হাসপাতালের টেন্ডারের বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ঠিকাদার হীরা আমাকে চর থাপ্পর মারে। পরে অফিসের অন্যরা এসে আমাকে উদ্ধার করে। আমি বিষয়টি আমার উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। তাদের সিদ্ধান্তে পরবর্তী আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।’
এবিষয়ে ঠিকাদার ইমদাদুল হক হীরার সেল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
নাটোর জেলা সিভিল সার্জন ডা. কাজী মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনার সময় আমি উপস্থিত ছিলাম না। বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রতন কুমার সাহাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।