নামকরণের জন্য একটি গ্রহ-নক্ষত্র পেল বাংলাদেশ

আপডেট: আগস্ট ২৯, ২০১৯, ১২:২০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


আন্তর্জাতিক জ্যোতির্বিজ্ঞান সংস্থার উদ্যোগে শুরু হয়েছে ‘বাহ্যগ্রহের নামকরণ’ শীর্ষক কর্মসূচি। এই কর্মসূচির অধীনে পৃথিবীর প্রত্যেক দেশকে একটি বাহ্যগ্রহ এবং এর তারকাটির নামকরণের সুযোগ দেয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৯৪টি দেশ এই ক্যাম্পেইনে অংশ নিয়েছে।
বাংলাদেশের জন্যও সংস্থাটি একটি নক্ষত্র এবং তার বাহ্যগ্রহ ঠিক করেছে, যার নামকরণের সুযোগ আমাদের দেশের জনগণ পাবে। এ উপলক্ষে বিস্তারিত জানাতে মঙ্গলবার রাজধানীর এলিফেন্ট রোডের দীপনপুরে ‘বাহ্যগ্রহের নামকরণ’ বিষয়ক একটি সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল ইউনিয়নের ন্যাশনাল আউটরিচ কোঅর্ডিনেটর (বাংলাদেশ) প্রফেসর ড. ফারসীম মান্নান মোহাম্মদী জানান, এই কর্মসূচি দুটি পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম পর্যায়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত হবে। পরে এটা সবার জন্য উন্মুক্ত হবে। একটি নির্দিষ্ট ফর্মে সকল শিক্ষার্থী বাহ্যগ্রহটি এবং তার নক্ষত্রের জন্য প্রযোজ্য নামটি প্রস্তাব করে পাঠাবে। তারপর একটি জাতীয় কমিটি সেটা আন্তর্জাতিক জ্যোতির্বিজ্ঞান সংস্থার নিয়মানুসারে বাছাই করবে। এই সংক্রান্ত সকল নিয়মাবলি, বৈজ্ঞানিক তথ্য পাওয়া যাবে spsb.org ওয়েবসাইটে। এছাড়া তথ্য জানা যাবে ফেসবুক পেজ (https://www.facebook.com/IAU-Name-Exoworld-Bangladesh-100859487940523) এবং ফেসবুক গ্রুপ থেকে (facebook.com/groups/astronomyschool)।
সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের জ্যোতির্বিজ্ঞান চর্চার অন্যতম পথিকৃৎ এফ আর সরকার বলেন, ‘এই নামকরণের উদ্যোগটি প্রশংসনীয় এবং ঐতিহাসিক।’ বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রনমিক্যাল সোসাইটির প্রেসিডেন্ট এবং আণবিক শক্তি কমিশনের প্রাক্তন মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. রেজাউর রহমান বলেন, ‘এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত সম্মানসূচক।’
বাংলাদেশ ফ্রিডম ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদ চৌধুরী বলেন, ‘বস্তু জগতে যেমন বাঙালির নামে বোসন কণা আছে তেমনি এখন মহাকাশেও বাংলা নামের একটা জ্যোতিষ্ক পেলে আমাদের জন্য খুবই গর্বের ব্যাপার হবে।’ বাংলাদেশে কর্মসূচিটির আয়োজক বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি।