নি¤œমান সড়কের কাজ বন্ধ করলেন এলাকাবাসী দুর্নীতির বিরুদ্ধে জনগণের জাগরণই শক্তি

আপডেট: জুন ১২, ২০১৮, ১:২১ পূর্বাহ্ণ

বলা হয় সরকারি অবকাঠামো নির্মাণ ব্যয় অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক বেশি। আর বেশি হওয়ার ক্ষেত্রে দুর্নীতি একটা বড় অনুসঙ্গ। দুর্নীতির ফলে কাজের গুনগতমান খারাপ হয়। এর প্রতিকার খুব একটা হয় না। সচেতন অনেকেই বিষয়টি জানেন কিংবা বোঝেন তারাও নিরব থাকেন। কেননা দুর্নীতির সাথে জড়িতরা প্রভাবশালী। মান-সম্মানের ভয়ে বিষয়টি নিয়ে কেউ মুখ খুলেন না। কিন্তু সব ক্ষেত্রে বিষয়টি ঠিক নয়Ñ বিচ্ছিন্নভাবে হলেও নি¤œমান কাজের প্রতিবাদ হয়। এবং সে প্রতিবাদ যদি ঐক্যবদ্ধ মানুষের হয় তা হলে সেটা প্রতিকারের একটা বড় সম্ভাবনা তৈরি হয়। তেমনি একটি ঘটনা ঘটেছে নওগাঁর বদলগাছী আক্কেলপুর সংযোগ সড়ক থেকে শালুককুড়ি খাদাইল সড়ক নির্মাণের ক্ষেত্রে। রাস্তাটি নি¤œ উপকরণ দিয়ে তৈরি হচ্ছিল। বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী ওই কাজ বন্ধ করে দেয় এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অভিযোগ দেন। এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন দৈনিক সোনার দেশ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।
প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে উপজেলা প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) এ সড়কটি পাকা করার প্রকল্প গ্রহণ করে। প্রকল্পটির চুক্তিমূল্য ছিলো ৫০ কোটি ১৭লাখ ২১ হাজার ৯শ টাকা। ২০১৭ সালে ১৬ অক্টোবর কার্যাদেশ নিয়ে ঠিকাদার প্রকল্পটির কাজ শুরু করে। নিয়ম অনুযায়ী ৫০% বালু ৫০% এক নম্বর ইটের খোয়া সংমিশ্রণ করে সাব ব্যাচ করার কথা থাকলেও ৭৫ থেকে ৮০ ভাগ বালু দিয়ে তার উপর ৩ নম্বর ও ১ নম্বর ইটের বড় বড় খোয়া ছিটিয়ে সামান্য পানি দিয়ে রোলার করে সাব ব্যাচের কাজ সম্পন্ন হয়। এরপর ৩নম্বর ইটের বড় বড় খোয়া দিয়ে এর উপর ১ নম্বর ইটের রাবিশ দিয়ে রোলার করে ডাবলুবিএম এর কাজ শেষ করে ঠিকাদার। এতে ঝাড়ঘরিয়া গ্রামবাসী নির্মাণ কাজে বন্ধ করে উপজেলা প্রকৌশলীর কাছে অভিযোগ করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা প্রকৌশলীর নির্দেশে হালচাষের ট্রাক্টর দিয়ে সড়ক উলটপালট করা হয়েছে। অর্থাৎ সড়কটি আবার নতুন করে তৈরি করা হবে।
উন্নয়ন প্রক্রিয়ার সাথে জনসাধারণ সম্পৃক্ততা এ জন্যই প্রয়োজন হয়। সরকারের অর্থায়নে যে এলাকায় অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প নেয়া নেই প্রকল্প কাজের সাথে স্থানীয় অধিবাসীদের সম্পৃক্ততা এ কারণেই গুরুত্বপূর্ণ যে, স্থানীয় জনগণ তাদের কল্যাণে নির্মিত অবকাঠামো কাজের মূল্যায়ন করতে পারে। সামাজিক অডিটের ধারণাটিও এখান থেকেই। জনগণের সম্পদ জনগণকে বুঝে নিতে হবে। এটা জনগণের ক্ষমতায়ন এবং উন্নত গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার জন্য অপরিহার্য। দেশে বিরাজমান দুর্নীতি থেকে দেশকে সুরক্ষা দিতে জনগণের এই সম্পৃক্ততা অতি গুরুত্বপূর্ণ। জনগণ ক্ষমতায়িত হলে সমাজে দুর্বৃত্তদের ক্ষমতা খর্ব হয়। বদলগাছী উপজেলার বিলাশবাড়ী ইউনিয়ন-শালুককুড়ি খাদাইলহাট এলাকার অধিবাসীরা ঐক্যবদ্ধ প্রতিবাদ করে সেই দৃষ্টান্তই রাখলেন। সম্মিলিত প্রতিবাদের ভাষাই দুর্বৃত্ত ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কার্যকর ফল পাওয়া যেতে পারে।
সরকারি যে কোনো অবকাঠামো কাজের পূর্ণাঙ্গ তথ্যসংবলিত বোর্ড তৈরি করে বাস্তবায়ন এলাকায় দৃষ্টিগ্রাহ্য স্থানে প্রদর্শনের ব্যবস্থ করা যেতে পারে। এতে ঠিকাদারের নাম ও প্রাক্কলিত ব্যয়সহ সম্পূর্ণ তথ্য (উপকরণের ব্যবহার নির্দিষ্ট করে) উল্লেখ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে এলাকাবাসী তাদের জন্য নির্মিত অবকাঠামোর মান নিজেরাই যাচাই করতে পারবে এবং অমিল কিছু হলে তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তথ্য দিয়ে অভিযোগ দিতে পারবে। সব পর্যায়ে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে জনসাধারণের দায়িত্ব পালনের সুযোগ সরকারকেই করে দিতে হবে। তবেই দুর্নীতির বিরুদ্ধে কার্যকর প্রতিরোধ গড়ে তোলা সম্ভব হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ