নিয়োগে সুপারিশ করতে পারবেন না মন্ত্রী-এমপিরা

আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০১৮, ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সরকারি নিয়োগে মন্ত্রী-এমপিদের সুপারিশের কারণে ব্যাপক দুর্নীতি ঘটছে। আর এতে স্বাভাবিক নিয়োগ প্রক্রিয়াও ব্যাহত হচ্ছে। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এমন অভিযোগ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আর দুদকের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন, নির্বাচনের এই বছরে মন্ত্রী-এমপিরা সরকারি নিয়োগে কোনো ধরনের সুপারিশ করতে পারবেন না।
দুদকের অভিযোগ, নিজ এলাকার মানুষের জন্য সরকারি চাকরিতে অনেক সুপারিশ বা ডিও লেটার পাঠান এলাকার এমপি ও মন্ত্রীরা। এমন ঘটেছে কনস্টেবল নিয়োগে একটি এলাকার জন্য বরাদ্দ পদ ৭ টি অথচ মন্ত্রী-এমপিদের ডিও লেটার এসেছে দেড় শতাধিক। আবার এমনও ঘটেছে এক এলাকার জনপ্রতিনিধি অন্য এলাকার মানুষের জন্যও সুপারিশ পাঠাচ্ছেন।
দুদক জানায়, মন্ত্রী-এমপিদের সুপারিশের প্রলোভন দেখিয়ে দালালরা চাকরি প্রার্থীদের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ আত্মসাৎ করছে। এছাড়া মন্ত্রী-এমপিদের এমন সুপারিশের কারণে স্বাভাবিক নিয়োগ প্রক্রিয়াও ব্যাহত হচ্ছে। একই সঙ্গে জনগণের মধ্যে সরকারের প্রতি বিরূপ মনোভাবও বাড়ছে।
দুদকের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন, সরকারি কোনো নিয়েগে মন্ত্রী-এমপিরা কোনো ডিও লেটার পাঠাতে পারবে না। এমন লেটার পাঠালে তা গ্রহণযোগ্যও হবে না। নির্দেশ অমান্য হলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী-এমপির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সরকারি সব নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ মেধার ভিত্তিতেই সম্পন্ন হবে।
তথ্যসূত্র: বাংলা ইনসাইডার