পঞ্চায়েতে বিপুল জয়ের পথে তৃণমূল

আপডেট: মে ১৮, ২০১৮, ১২:০২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


পঞ্চায়েত নির্বাচনের গণনা শুরু হতে দেরি হলেও, কিছুক্ষণের মধ্যেই বাংলার সবুজ রূপ দেখা গেল। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে আটটা থেকে গণনা শুরুর একঘণ্টার মধ্যে অধিকাংশ জেলাতেই তৃণমূল বিপুল ভোটে জয়লাভ করতে শুরু করেছে। তৃণমূল কংগ্রেসের বিশ্বাস, দিনের শেষে জয়ের হাসি তারাই হাসবে। গণনা চলাকালীন এখনও পর্যন্ত দক্ষিণ ২৪ পরগণায় গ্রাম পঞ্চায়েতে ৯০টি আসনে এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল। এরপরই দ্বিতীয় স্থানে উত্তর ২৪ পরগণা রয়েছে। এখানে ৮১টি গ্রাম পঞ্চায়েত আসন পেয়েছে তৃণমূল। নদীয়া এবং দক্ষিণ দিনাজপুরেও তৃণমূল এখনও পর্যন্ত ৭০ এবং ৭৩টি আসন পেয়ে জয়ের পথে এগোচ্ছে।
কোচবিহারেও ৬১টি আসন পেয়ে বিরোধী দলের সঙ্গে ব্যাপক দুরত্ব বজায় রেখে দিয়েছে তৃণমূল। বীরভূমে গণনার কিছুক্ষণের মধ্যে তৃণমূল ২১ টি আসন এগিয়ে যায় বলে জানা যাচ্ছে। এর পাশাপাশি, পূর্ব–পশ্চিম বর্ধমান, পুরুলিয়া, মালদা, মূর্শিদাবাদ, আলিপুরদুয়ার, বীরভূম, হাওড়া, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম সহ সব জেলাতেই গণনার কিছুক্ষণ পরই বোঝা যায় যে তৃণমূলই জয়ী হবে পঞ্চায়েত নির্বাচনে। তৃণমূলের পাশাপাশি বিজেপি–সিপিএম–কংগ্রেস বা নির্দল এদের আসন সংখ্যা তৃণমূলের তুলনায় অনেকটাই কম। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশানুযায়ী যেহেতু গণনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিজয় মিছিল করা যাবে না, তাই শাসক দলের সমর্থকরা তাঁদের খুশি আপাতত একে–অপরের সঙ্গে ভাগ করে নিচ্ছেন।
গণনা শেষ হওয়ার পরই জেলায় জেলায় উড়বে সবুজ আবির। এদিকে, পুড্ডি, সারেঙ্গা বিক্রমপুর, সিমলাপাল বিক্রমপুর, কেঞ্জাকুড়া, মানকালী গ্রাম পঞ্চায়েত দখল করেছে বিজেপি শিবির। ভাতার গ্রাম পঞ্চায়েতের ২১টি আসনের মধ্যে তৃণমূল জিতেছে ১৩টি আসনে। বিজেপি ও সিপিএম প্রত্যেকে জিতেছে ৩ টি করে আসনে। নির্দলের ঝুলিতে ২টি আসন। বলগোনা গ্রাম পঞ্চায়েত ১৭টি আসনের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী ১৪ টি আসনে, ৩টি আসনে জয়ী নির্দল। তবে পূর্ব বর্ধমানের ভাতারে নিত্যানন্দপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ১৮টি আসনের ১৮টিতেই জয়লাভ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস।
পাশাপাশি, বড়বেলুন ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের ৯টি আসনের মধ্যে তৃণমূল জিতেছে ৮টি আসনে। নির্দল প্রার্থী জিতেছেন একটি আসনে । বড়বেলুন ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের ১০টি আসনের মধ্যে ৯টিতে জয়ী তৃণমূল। একটি আসনে জয়ী সিপিএম।
হলদিয়া ব্লকের দেউলপোতা গ্রামপঞ্চায়েতের ২ নং বুথে জয়ী নির্দল প্রার্থী বাতাসী রাউত।
তথ্যসূত্র: আজকাল