পত্নীতলায় ঈদ মার্কেটে উপচে পড়া ভীড়

আপডেট: জুন ২৪, ২০১৭, ১:২২ পূর্বাহ্ণ

পত্নীতলা প্রতিনিধি


রমজানের শেষ মুহুর্তে নওগাঁ জেলার পত্নীতলা উপজেলার নজিপুর সদরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার । নজিপুর সদরের বিভিন্ন মার্কেটের শপিং মল থেকে শুরু করে ফুট পাতের দোকানগুলোতে তিল ধারনের জায়গা নেই । ঈদে চাই নতুন পোশাক । তাইতো সাধ সাধ্যের মধ্যে না থাকলেও প্রিয়জনের উপহার দিতে ধনী ও মধ্যবিত্তদের পাশাপাশি কেনা কাটায় ব্যস্ত সময় পার করছে নি¤্ন্নবিত্তের মানুষও। এদিকে ঈদ উপলক্ষে নজিপুর সদরের বিভিন্ন মার্কেট গুলোতে ভারতীয় পোষাকে ছেয়ে গেছে। দোকান মালিকরা বলেন, ক্রেতা দোকানে আশার সাথে সাথেই ভারতীয় পোষাক চাই, আর যে দোকান গুলোতে ভারতীয় পোষাক পাওয়া যাচ্ছে না সেই দোকানগুলোতে তেমন ভিড় লক্ষ করা যাচ্ছে না। তবে এসব মার্কেটে মানসম্মত দেশীয় পোশাক সামগ্রী থাকলেও ক্রেতা সাধারণের চাহিদা ভারতীয় পোশাকের প্রতি একটু বেশি। এবার ঈদে মেয়েদের জন্য আকর্ষণীয় পোশাকের মধ্যে রয়েছে বাহুবলি টু, রাখিবন্ধন, পটল কুমার, বাজরাঙ্গি ভাইজা, ফ্লোর টার্চ, লাসা, লং স্কাট, শর্ট স্কাটসহ বিভিন্ন নামের থ্রি-পিস ও ফোর পিস পোশাক। তবে দেশী অনেক পোশাক ক্রেতাদের আকর্ষণ করেছে । এর মধ্যে রয়েছে করেছে দেশীয় পণ্য টাঙ্গাইল শাড়ি, জামদানী, খদ্দর, মনীপুরী, রাজগুরু, বালুচুরী, জর্জেট শাড়ি ইত্যাদি। গত বছরের তুলনায় এবার পোশাকের দাম একটু বেশি হওয়ায় নি¤্ন্নবিত্তরা পড়েছেন বিপাকে। অবশ্য নি¤্নবিত্তদের কথা চিন্তা করে ইতোমধ্যে ফুটপাত মার্কেটে বেশ কয়েকটি পোশাকের দোকান দিয়েছে স্বল্প পুঁজির ব্যবসায়ীরা। বড় বড় মার্কেটের চেয়ে এই সব মার্কেটে জমে উঠেছে বেচাকেনা । তাছাড়া জুতার দোকানেও ভিড়ের কমতি নেই, বেড়েছে কসমেটিকসের বেচা কেনাও । বড়দের সাথে পাল্লা দিয়ে পছন্দের জুতা, স্যান্ডেল, প্যান্ট, জামা কিনছে শিশুরা । সব ধরনের ক্রেতাদের চাপে দোকানীদের এখন দম ফেলার ফুরসত নেই বললেই চলে। এ দিকে আবার ঈদকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছেন নগরীর টেইলাসের্র দর্জিরা । সময় মতো পোষাক ডেলিভারি দেয়ার জন্য তারা দিন-রাত সমান তালে কাজ করে যাচ্ছেন । দর্জিরা জানান, ১৫ রমজানের পর আর কোনো নতুন অর্ডার নেয়া হয়নি । কিন্তু যে অর্ডার তারা নিয়েছেন তা সময় মতো ডেলিভারি দিতেই তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে ।