পত্নীতলায় বোরো ধানকাটা শ্রমিক সঙ্কট

আপডেট: মে ১২, ২০১৯, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

পত্নীতলা প্রতিনিধি


পত্নীতলায় শ্রমিক সংকটের কারণে এভাবে মাঠে মাঠে ধান পড়ে আছে-সোনার দেশ

পত্নীতলা উপজেলায় নজিপুর পৌর এলাকাসহ ১১টি ইউনিয়ন পর্যায়ে বোরো ধানকাটা শ্রমিকের তীব্র সঙ্কটে বিপাকে পড়েছেন চাষিরা।
উপজেলার মাটিন্দর ইউনিয়নের শাশইল গ্রামের চাষি বকুল কবির, রমজান আলী, জিল্লুর রহমান, ঘোষনগর ইউনিয়নের চাষি আজিজার রহমান, নজিপুর পৌর এলাকার হরিরামপুরের চাষি মমতাজ উদ্দিন, রমজান আলী, নজিপুর ইউনিয়নের পদ্মপুকুর গ্রামের চাষি মুকুল হোসেন জানান, মাঠের ধান পেকেছে। ধানকাটা শ্রমিক না পাওয়ায় চরম দুঃচিন্তায় রয়েছেন। ফণীর কবল হতে ফসল রক্ষা পেয়ে চাষিদের সোনালী স্বপ্ন নিয়ে দু’নয়নে ভাসছে দিনে-রাতে যেন সুষ্ঠু ভাবে ধান ঘরে উঠাতে পারেন। চাষিরা আরো জানায়, মাঠ থেকে ধানকাটা, উঠানো ও মাড়াই চুক্তি ভিত্তিক প্রতিমণে শ্রমিকদের ১২-১৬ কেজি পর্যন্ত ধান দিতে হচ্ছে। এরপরও শ্রমিক মিলছে না।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ প্রকাশ চন্দ্র সরকার জানান, একসঙ্গে মাঠের ধান পাকা ও রমজান মাস হওয়ায় এলাকায় সাময়িক ভাবে কৃষি শ্রমিকের সঙ্কট দেখা দিয়েছে। তিনি আরো জানান, স্থানীয় শ্রমিকরা বর্তমানে অনেকেই চার্জার ভ্যানগাড়ির চালক। উত্তরবঙ্গে একই সঙ্গে ধানকাটা মৌসুম হওয়ায় অন্য জেলা হতে আগত শ্রমিক এবার কম আসায় বর্তমানে শ্রমিক সঙ্কটে পড়েছেন চাষিরা। তবে সমস্যাটি অচিরেই কেটে উঠবে বলেও মতপোষণে তিনি জানিয়েছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ