বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

পাথর আমদানীতে অতিরিক্ত মাশুল বৃদ্ধির প্রতিবাদে আমদানি ও রফতানিকারক গ্রুপের সাংবাদিক সম্মেলন

আপডেট: December 9, 2019, 1:33 am

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি


সাংবাদিক সম্মেলন লিখিত বক্তব্য পড়েন আমদানি ও রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি রফিকুল ইসলাম-সোনার দেশ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থলবন্দরে পানামা পোর্ট লিংক লি. প্রচলিত নিয়ম উপেক্ষা করে পাথর আমদানীতে একতরফা অতিরিক্ত মাশুল বৃদ্ধির প্রতিবাদে সোনামসজিদ আমদানি ও রফতানিকারক গ্রুপ সাংবাদিক সম্মেলনে করেছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় একটি হোটেলে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আমদানি ও রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি রফিকুল ইসলাম জানান, সোনামসজিদ স্থলবন্দরে আমদানী ব্যবসা সচল রাখার জন্য গত ২০০৬ সালের ২৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেই সভায় প্রতি পাথরের গাড়ীতে ৭’শ ৮৩ টাকা হিসেবে পানামা পোর্ট মাশুল পরিশোধ সাপেক্ষে ব্যবসা অব্যাহত রাখবে বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পাথর আমদানী অব্যাহত ছিল। কিন্তু পানামা পোর্ট লিংক লি. বন্দর মাশুল প্রতি টনে ১৯ টাকার পরিবর্তে ১৬৪ টাকা নির্ধারণ করায় পাথর আমদানি বন্ধ রাখা হয়েছে। অতিরিক্ত মাশুল আদায়ে ‘পানামা’ ও ‘বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ’ কোন চিঠি দেয়নি তাদের। এরই মধ্যে দু’টি বৈঠক হলেও, কোন সুরাহা হয়নি। ফলে গত ১৭ নভেম্বর থেকে সোনামসজিদ স্থলবন্দরে পাথর আমদানি বন্ধ রাখা হয়েছে।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, পানামা’র হঠাৎ করে অতিরিক্ত এই মাশুল আদায় যড়যন্ত্রমূলক। যা বন্দরটিকে অচল করার নেপথ্যে পানামার সঙ্গে যোগ দিয়েছে একটি কুচক্রী মহল। পানামা’র অযাচিত এই মাশুল বৃদ্ধির ফলে সরকার যেমন রাজস্ব হারাচ্ছে, তেমনি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে আমদানিকারকরা। ব্যবসা-বাণিজ্যের সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবি জানান।
এ বিষয়ে সোনামসজিদ পানামা পোর্ট লিংক লি. এর জেনারেল ম্যানেজার বেলাল হোসেন বলেন, ট্যারিফ সংযোজন পানামার নিজস্ব বিষয় নয়, এটি বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত। অন্যান্য বন্দরের ন্যায় এ বন্দরে একই নিয়মে ট্যারিফ সংযোজন করা হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, গত ১৪ নভেম্বর বন্দরে এসেছিলেন বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (ট্রাফিক) ড. শেখ আলমগীর হোসেন। তিনি উভয় পক্ষকে নিয়ে বৈঠক করেন। পরে এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের সুপারিশ করে যান। এরপরই ট্যারিফ সংযোজনের নির্দেশনা দেয়া হয়।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সোনামসজিদ আমদানি ও রপতানিকারক গ্রুপের উপদেষ্টা মো. আমিনুল ইসলাম সেন্টু ও মো. একরামুল হক, সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. সাহাবুদ্দিন, সহ-সভাপতি মো. নুরুল হুদা, কোষাধ্যক্ষ দিলীপ কুৃমার মন্ডল।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ