পুরুষের স্বাস্থ্যের যে উপসর্গ বিপজ্জনক

আপডেট: জুন ২৬, ২০১৮, ১২:৫৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


জুন হচ্ছে পুরুষ স্বাস্থ্য সচেতনতার মাস। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে অনেক পুরুষ সেসব মারাত্মক উপসর্গ উপেক্ষা করেন যা উচিত নয়। বিপজ্জনক হতে পারে- পুরুষের স্বাস্থ্যের এমন কিছু উপসর্গ নিয়ে দুই পর্বের প্রতিবেদনের আজ থাকছে প্রথম পর্ব।
অনবরত চুলকানি: যদি আপনি বেশি চুলকানিপ্রবণ হন, তাহলে তা সম্ভবত ক্ষতিকর কিছু নয় এবং শুষ্ক ত্বক বা কন্টাক্ট ডার্মাইটিস হিসেবে এর চিকিৎসা সহজেই করা যায়। ডা. জাম্পেলা বলেন, বেশি চুলকানি আবার মারাত্মক কোনোকিছুর লক্ষণও হতে পারে। তিনি বলেন, ‘অনবরত চুলকানি লিম্ফোমা, মাল্টিপল মায়েলোমা ও এমনকি ডায়াবেটিসেরও লক্ষণ হতে পারে এবং প্রকৃত কারণ নির্ণয়ের জন্য চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।’
মূত্রত্যাগে সমস্যা: যদি আপনার মূত্রত্যাগের সমস্যা লেগে থাকে অথবা প্রস্রাব বা বীর্যের সঙ্গে রক্ত আসে কিংবা অপ্রত্যাশিত ইরেকটাইল ডিসফাংশন থাকে, তাহলে জেনে রাখুন এসব প্রোস্টেট ক্যানসারের উপসর্গ হতে পারে। কি হয়েছে বা হচ্ছে নির্ণয় করতে চিকিৎসকের কাছে যান।
অ-কোষে লাম্প: ইউরোলজি কেয়ার ফাউন্ডেশন অনুসারে, অনেক পুরুষের ক্ষেত্রে, অ-কোষে ব্যথাহীন লাম্প বা পি– অ-কোষীয় ক্যানসারের সর্বাধিক কমন লক্ষণ। অন্যান্য উপসর্গের মধ্যে অ-থলিতে অতিরিক্ত ওজন অনুভব করা, অ-কোষে ব্যথাযুক্ত বা ব্যথাহীন ফোলা হওয়া এবং অ-কোষ, অ-থলি বা কুঁচকিতে ব্যথা বা নিস্তেজ ব্যথা হওয়া অন্তর্ভুক্ত হতে পারে। এক্ষেত্রে অপেক্ষা করবেন না, কারণ তাড়াতাড়ি ডায়াগনোসিস সাপেক্ষে অ-কোষীয় ক্যানসার হচ্ছে সর্বাধিক চিকিৎসাযোগ্য ও নিরাময়যোগ্য ক্যানসার।
অত্যধিক কালশিটে দাগ: যদি আপনি খেয়াল করেন যে সবসময় কালশিটে দাগ উঠছে, বিশেষ করে সেসব স্থানে যেখানে সাধারণত তা ওঠে না, যেমন- আপনার হাত বা আঙুল, তাহলে চিকিৎসক দেখান। অস্বাভাবিক কালশিটে দাগ লিউকোমিয়ার উপসর্গ হতে পারে। এটি ক্যানসারের একটি সম্ভাব্য লক্ষণ যা পুরুষদের অবহেলা করা উচিত নয়।
এইচপিভি: ডা. জাম্পেলা বলেন, ‘হিউম্যান প্যাপিলোমাভাইরাস (এইচপিভি) পেনাইল ক্যানসার বা শিশ্ন ক্যানসার ও জেনিটাল ওয়ার্ট সৃষ্টি করতে পারে।’ উপসর্গের মধ্যে জেনিটাল বা এর আশেপাশের ত্বকে ওয়ার্ট ওঠা অন্তর্ভুক্ত হতে পারে, এইচপিভি আছে এমন লোকদের ৫০ শতাংশই এটি সম্পর্কে জানে না, যা তাদের যৌনসঙ্গীকে ঝুঁকিতে রাখতে পারে। তিনি বলেন, ‘এটি প্রতিরোধ করার জন্য আমাদের টিকা রয়েছে।’
জন্ডিস: ত্বক, চোখের সাদা অংশ ও মিউকাস মেমব্রেন হলদেটে হলে বোঝা যায় যে জন্ডিস হয়েছে। রক্তে বিলিরুবিনের মাত্রা বেড়ে গেলে এটি হয়ে থাকে। একটি সুস্থ যকৃত রক্তে বিলিরুবিনের মাত্রা হ্রাস করতে বিলিরুবিন বিপাক করে। জন্ডিসের অনেক সম্ভাব্য কারণ রয়েছে, কিন্তু একটি ভীতিপ্রদ খবর হচ্ছে, এটি অগ্ন্যাশয় ক্যানসারের একটি লক্ষণ হতে পারে, যা আপনার উপেক্ষা করা উচিত নয়।
চোয়ালে ব্যথা: ডা. আপেলবাউম বলেন, ‘বুকে ব্যথা ও চাপ হৃদরোগের সাধারণ উপসর্গ। কিন্তু চোয়াল ও ঘাড় ব্যথা, বাহুর অসাড়তা, মূর্ছা যাওয়ার অনুভূতি ও শ্বাসকষ্ট- বিশেষ করে কাজ করার সময় এসব উপসর্গ দেখা দিলে ও বিশ্রাম নিলে চলে গেলে, তাহলে তাও পুরুষদের ক্ষেত্রে হৃদরোগ বা হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ হতে পারে।’ হার্ট অ্যাটাকের অন্যান্য লক্ষণও জেনে রাখুন, যাতে হার্ট অ্যাটাক হতে যাচ্ছে কিনা তা বুঝতে পারেন।