বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে এ বার ময়দানে পুলিশ কমিশনারও, পোস্তার পাইকারি বাজারে হানা

আপডেট: December 11, 2019, 1:18 am

সোনার দেশ ডেস্ক


মুখ্যমন্ত্রীর পর এ বার পুলিশ কমিশনার। পেঁয়াজের দাম খতিয়ে দেখতে ময়দানে নামলেন কলকাতা পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা। মঙ্গলবার আচমকাই পোস্তা বাজারে পেয়াজের পাইকারি দর খতিয়ে দেখলেন কলকাতার নগরপাল। ব্যবসায়ীরা ভিন রাজ্য থেকে কত দামে কিনছেন এবং বিক্রির দর কত, সে সব বিষয়ে সবিস্তার খোঁজখবর নেন অনুজ শর্মা।
সোমবার হঠাৎ যদুবাবুর বাজারে হাজির হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ১৪০-১৫০ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে দেখে তিনি উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন। বিক্রেতাদের কাছে জানতে চেয়েছিলেন, তাঁরা কত টাকায় পাইকারি বাজার থেকে পেঁয়াজ কিনছেন? পরের দিনই পোস্তা বাজার সরেজমিন খতিয়ে দেখলেন পুলিশ কমিশনার।
তবে গত কয়েক দিনের তুলনায় এ দিন পোস্তা বাজারে পেঁয়াজের পাইকারি দর কিছুটা কমই ছিল। পাইকারি বিক্রি হয়েছে ৯০ থেকে ১০০ টাকা কেজি দরে। ব্যবসায়ীরা সিপি-কে জানিয়েছেন, কয়েক দিনের মধ্যে পেঁয়াজের দাম আরও কিছুটা কমতে পারে। রাজ্য সরকারের গঠিত টাক্স ফোর্সের অন্যতম সদস্য কমল দে বলেন, ‘‘গত কয়েক দিনের তুলনায় পেঁয়াজের পাইকারি দর অনেকটাই কম ছিল। আশা করছি আরও কিছুটা কমবে আগামী সপ্তাহের মধ্যেই।’’ যদিও তুলনায় খুচরো বাজারে পেঁয়াজের দাম এখনও খুব বেশি কমেনি। কলকাতার খুচরা বাজারে এ দিন কেজি প্রতি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ১৪০ টাকার আশপাশে।
খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দর এখনও না কমলেও কলকাতা সমেত কয়েকটি জেলার রেশন দোকানে এবং স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মাধ্যমে সহায়ক মূল্যে ভর্তুকিতে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে রাজ্য সরকার। পরিবার পিছু এক কেজি করে পেঁয়াজ নিতে লম্বা লাইন পড়ছে রেশন দোকানগুলিতে। বিপুল পেঁয়াজের চাহিদা থাকলেও রাজ্য সরকারের বেঁধে দেওয়া ৫৯ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ নিতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন ক্রেতারাও। রাজ্য জুড়ে ১৩১টি সুফল বাংলা স্টলেও একই দামে পেঁয়াজ পাওয়া যাচ্ছে। তথ্যসূত্র: আনন্দ বাজার