বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

পোখারায় সোনা জিতে দুঃখ ভুলেছেন রোমান

আপডেট: December 9, 2019, 1:35 am

সোনার দেশ ডেস্ক


চোটের কারণে গত এসএ গেমসে খেলতে পারেননি। সেই কষ্টে তিন বছরেরও বেশি সময় কাটিয়ে পা রাখেন নেপালে। কাঠমান্ডু-পোখারার আসরে এসে সোনার পদক জিতে সে দুঃখ ভুলেছেন রোমান সানা।
পোখারা স্টেডিয়ামে রোববার ছেলেদের রিকার্ভ পুরুষ দলগত ও মিশ্র দলগত বিভাগে সোনা জিতেছে বাংলাদেশ। ছেলেদের দলগত ইভেন্টে তামিমুল ইসলাম ও হাকিম মোহাম্মদ রুবেলকে সঙ্গে নিয়ে শ্রীলঙ্কাকে ৫-৩ সেট পয়েন্ট হারিয়ে সোনা জিতেন রোমান। পরে মিশ্র দলগততে ইতি খাতুনকে সঙ্গে নিয়ে দ্বিতীয় সোনার পদকের স্বাদ নেন এই অ্যাথলেট।
রোমানের এককের খেলা সোমবার। তবে দেশকে টোকিও অলিম্পিকের টিকেট এনে দেওয়া এই আর্চার খুশি দলগত ও মিশ্রতে সোনা জিতে।
“আসলে আল্লাহ পাকের শুকরিয়া আদায় করছি, যে গোল্ড অর্জন করতে পেরেছি। বড় কথা হচ্ছে, ২০১৬ সালে এসএ গেমসে বড় একটা ইনজুরির কারণে খেলতে পারিনি। তখন অনেক দুঃখ লেগেছিল।”
“এবার খেলতে আসতে পেরেছি। আজ দিনের শুরুটাও হয়েছে সোনা জিতে। দলগত ও মিশ্র দলগত মিলিয়ে আজ দুটো গোল্ড পেয়েছি, ধরতে গেলে এটা আমার ক্যারিয়ারের সেরা অর্জন। আগামীকাল এককের ইভেন্ট আছে। আল্লাহপাক সহায় থাকলে, ইনশাল্লাহ কালও জিততে পারব।”
গত জুনেই আর্চারি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপসে ব্রোঞ্জ জিতে দেশকে ২০২০ সালের টোকিও অলিম্পিকে খেলার টিকেট এনে দেন রোমান। এসএ গেমসের সোনার চেয়ে নেদারল্যান্ডসে পাওয়া ব্রোঞ্জকেই এগিয়ে রাখছেন ‘গুলতিম্যান’ থেকে তিরন্দাজ বনে যাওয়া এই তারকা।
“ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপসের ব্রোঞ্জের চেয়ে এটাকে এগিয়ে রাখতে চাই না। বলতে গেলে আগে আমরা বড় কোনো টুর্নামেন্টে পদক জিততাম না। এটাই আমাদের কাছে সবচেয়ে বড় আসর ছিল। কিন্তু এখন বাংলাদেশ খেলাধুলার দিক থেকে অনেক এগিয়ে গেছে।”
“আসলে ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপস হচ্ছে অলিম্পিক লেভেলের। বিশ্বে বড় যদি কোনো গেমস থাকে, তাহলে সেটা অলিম্পিক। সেখানে কোয়ালিফাই করা আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় অর্জন। আমি মনে করি, বাংলাদেশে যত গেমস আছে, তার মধ্যে বড় অর্জন ওটা।”