প্রধানমন্ত্রীর রাজশাহী সফর সফল হোক

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৭, ১:০১ পূর্বাহ্ণ

মো. আবদুল কুদ্দুস


ধর্ম পুরুষ শাহমুখদুম রূপস (র.), অসংখ্য ভাষা শহিদ, একাত্তরের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামানের পবিত্র রক্ত¯্নাত রাজশাহীর মাটি-বর্তমানে আওয়ামী লীগের ঘাঁটি। রাজশাহীর মাটি আওয়ামী লীগের ঘাঁটি কথাটি বলছি একারণে যে বর্তমানে এখানকার সব নির্বাচনী আসন বিগত দুুটি সংসদ নির্বাচন অর্থাৎ ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নবম জাতীয় সংসদ ও ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সব কয়টি আসনেই আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা জয়ী হয়ে জাতীয় সংসদে প্রতিনিধিত্ব করছেন। শান্তি ও সবুজের স্বর্গ বসবাসের উপযোগী সর্বোত্তম এই শহরে বাঙালি জাতির পিতার কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সরকারি সফরে আসছেন। প্রধানমন্ত্রীর আগমনের খবর জেনে এই এলাকার কৃষক-শ্রমিক, কুলি-মজুর, তরুণ-তরুণী, যুবক-বৃদ্ধা থেকে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। কারণ প্রধানমন্ত্রীর এই সফরের দুটি গুরুত্বপূর্ণ দিক রয়েছে। তা হলো, এক. আসন্ন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন, দুই. রাজশাহীর উন্নয়নে এই এলাকার সর্বস্তরের জনসাধারণের মতামত গ্রহণ ও নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধকরণ।
প্রধানমন্ত্রীর তাৎপর্যপূর্ণ এই সফরে বৃহত্তর রাজশাহী অঞ্চলের মানুষের সবচেয়ে বড় আনন্দের বিষয় হলো এই অন্ষ্ঠুান থেকে জনগণ শেখ হাসিনার মুখে সরাসরি রাজশাহীর উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি পাবেন। রাষ্ট্রীয় এই অনুষ্ঠানে দাওয়াত নিয়ে অংশগ্রহণ করবেন এই অঞ্চলের সাংবাদিক, ছাত্র-শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী, সুধিজন, লেখক, সমাজকর্মী, নারী অধিকারকর্মী, সাংস্কৃতিক কর্মী ও সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা। এছাড়াও রাজশাহী, নাটোর নওগাঁ, চাঁপাইনবাগঞ্জ, বগুড়া, জয়পুরহাট, পাবনা, সিরাজগঞ্জসহ উত্তর বাংলার বিভিন্ন এলাকার আওয়ামী লীগ নেতা-কর্র্মী ও সমর্থকদের ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধ’ু স্লোগানে এদিন মুখরিত হবে রাজশাহীর মাটি, আকাশ ও বাতাস। এই সমাবেশের মাহাত্ম আরো বৃদ্ধি পাবে যখন এখান থেকে ফিরে গিয়ে সাংবাদিক লেখক বুদ্ধিজীবীরা তাঁদের কলম হাতে রাজশাহীর উন্নয়নের কথা জাতির কাছে তুলে ধরবেন। তুলে ধরবেন ১৪ সেপ্টেম্বরের প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার সফরের গুরুত্ব ও তাৎপর্যের কথা। এই অঞ্চলের সাধারণ মানুষ, গৃহিণী, গৃহকর্মী সবাই তাঁদের প্রিয় নেত্রীর মুখ থেকে রাজশাহীর উন্নয়নের কিছু কথা শুনার জন্য ওইদিন অধীর আগ্রহে ঝড় বৃষ্টি রোদ উপেক্ষা করে রব রব উৎসবে সমাবেশস্থলে সুশৃঙ্খলভাবে বসে থাকবেন। একেবারে রিমোট গ্রামের আওয়ামী লীগ সমর্থক ও নেতা কর্মীরা গাড়িতে ভিড়াভিড়ি করে শত কষ্ট ভোগান্তি ভুলে প্রিয় নেত্রীকে অভিবাদন জানাতে রাজশাহীতে ওইদিন হাজির হবেন। অবশ্য সমাবেশ সফল করা এবং নেতা কর্মীদের সার্বিক নিরাপত্তা ও সুযোগ সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে রাজশাহী আওয়ামী লীগের অভিভাবকতুল্য জনাব এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি, আয়েন উদ্দিন এমপি, জনাব ডাবলু সরকার, আসাদুজ্জামান আসাদসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ রাতভোর পরিশ্রম করে সমাবেশ প্রস্তুতির কাজ করে যাচ্ছেন। এসব কাজে সহযোগিতা করছেন প্রশাসনের কর্মকর্তারা।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সফর ঘিরে রাজশাহীবাসীর প্রত্যাশা হলো নিরাপদ উন্নত ও শিল্পভিত্তিক আধুনিক রাজশাহী বিনির্মাণ। এই উদ্দেশ্যে এই এলাকার মানুষ বাংলাদেশের অভিভাবক বিশ্বের উন্নয়নের রোল মডেল, বাংলাদেশের উন্নয়নের বিস্ময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নিকট কয়েকটি দাবি তুলে ধরছেন:
ক) রাজশাহী পবা উপজেলার পারিলা ইউনিয়নে প্রতিষ্ঠিত হতে যাওয়া বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের সমস্ত কাজ দ্রুততার সাথে সাথে সম্পন্ন করে এই এলাকার শিক্ষিত মেধাবী ও বেকার জনগোষ্ঠির মাঝে ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টির উদ্যোগ গ্রহণ করা দরকার।
খ) রাজশাহীর হযরত শাহমুখদুম বিমানবন্দরকে সব ধরনের সেবা উপযোগী একটি আধুনিক ও আন্তর্জাতিক মানের বিমান বন্দরে রূপান্তরকরণে যাবতীয় উদ্যোগ গ্রহণ।
গ) যেহেতু রাজশাহী একটি কৃষিপ্রধান অঞ্চল সেজন্য রাজশাহীতে একটি কৃষিভিতিত্তক বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করা।
ঘ) রাজশাহী এমন একটি শান্ত শহর যেখানে এর প্রায় অধিকাংশ মানুষ একে অপরকে চেনেন ও জানেন। এখানকার মানুষ সহজেই একে অপরের কর্ম ও ভালোবাসা আদান প্রদান করতে পারেন। কিন্তু মানুষের কর্মের ও ভালোবাসার আদান প্রদান জাতীয় ও আন্তর্জাতিকীকরণে এবং বিশ্বদরবারে তুলে ধরতে একটি শক্তিশালী ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া ও গণমাধ্যম দরকার। সেই লক্ষ্যে রাজশাহীতে একটি সরকারি/বেসরকারিভাবে টিভি চ্যানেল প্রতিষ্ঠা অতিব জরুরি বলে এই এলাকার জনগণ মনে করেন।
ঙ) রাজশাহীর ঐতিহ্যবাহী দুটি কৃষি শিল্প আম ও রেশম। এই দুটি ঐতিহ্যবাহী কৃষিপণ্যের চাষাবাদ উন্নতকরণ ও কৃষকের মাঝে নায্যমূল্য ও উৎসাহ উদ্দীপনা ফিরিয়ে দিতে কৃষিভিত্তিক শিল্প প্রতিষ্ঠার জোর দাবি জানানো হচ্ছে।
চ) রাজশাহী একটি পুরাতন ও ঐতিহ্যবাহী বিভাগীয় শহর হওয়া সত্ত্বেও ঢাকার সাথে সড়ক পথে যোগাযোগের অবস্থা খুবই খারাপ। রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়ক দুই লেনের অপ্রশস্ত ও সরু হওয়ায় দুর্ঘটনার কারণে প্রতিনিয়ত অসংখ্য মানুষের প্রাণ ঝরে যাচ্ছে। এছাড়া যাত্রীবাহী ও পণ্যবাহী গাড়ি ঢাকার সাথে যোগাযোগের ক্ষেত্রে ধীরগতি হওয়ায় এই অঞ্চলের ব্যবসায়ীরা ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছেন। ফলস্বরূপ তাঁরা ব্যবসার আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন। তাই এই রাস্তাটি ফাস্ট ট্র্যাক প্রজেক্টের আওতায় জরুরি ভিত্তিতে চার লেনে পরিণত করা দরকার বলে জোর দাবি জানাচ্ছি।
ছ) রাজশাহী থেকে রাজধানী ঢাকায় ট্রেন চলাচলের ক্ষেত্রে রাজশাহী হতে নাটোর আব্দুলপুর পর্যন্ত ডাবল লাইন না থাকায় মানুষের ট্রেন ভ্রমণে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়। এ ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
জ) রাজশাহীর একমাত্র বিনোদন কেন্দ্র পদ্মা নদীর তালাইমারি থেকে বড়কুঠি, লালন শাহ মুক্তমঞ্চ, আইবাঁধ, টি বাধ ও কোর্ট এলাকার একটি মেগা প্রকল্প গ্রহণ করে ওই অঞ্চলে একটি পর্যটন স্পট গড়ে তোলা যেতে পারে। এতে করে রাজশাহী মহানগরী বিশ্বদরবারে উন্নত পর্যটন ও ব্যবসায় নগরিতে পরিণত হতে পারে।
ঞ) মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আমাদের দাবি আগামীতে তাঁর মন্ত্রী পরিষদে রাজশাহী থেকে বেশি করে মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রীর ও উপমন্ত্রীদের জায়গা করে দেবেন।
ট) জাতীয় রাজনীতিতে রাজশাহীর অবদান সবসময় অনেক বেশি থাকলেও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে কম সংখ্যক নেতা রয়েছেন বা কেন্দ্রীয় নেতা নেই বললেই চলে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর নিকট আমাদের দাবি এই অঞ্চল হতে ভবিষ্যতে ত্যাগী ও মেধাবী নেতাদের কেন্দ্রীয় সংসদে জায়গা করে দেবেন।
পরিশেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আমরা আশ্বস্ত করতে চাই, আমরা শুধু আপনার নিকট দাবি রাখতে চাই না। বরং আমরা আপনার দেওয়া রাজশাহীর উন্নয়নকে সারাজীবন ধরে ঋণ হিসেবে ধারণ করে রাখতে চাই। যাতে করে আমরা ওই ঋণের সুদ হিসেবে প্রতিটি জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনে আপনার নৌকা প্রতিককে বিজয়ী করে জাতীয় সংসদে পাঠিয়ে ঋণের সুদ হিসেবে আপনার পাওনা আপনাকে ফেরত দিতে পারি। আপনার দূরদর্শী নেতৃত্বে রাজশাহীবাসীর ঘরে ঘরে গ্যাস প্রাপ্তি, পদ্মাপাড়ে বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক, নভোথিয়েটার, মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কথা রাজশাহীবাসী কোনদিনও ভুলবে না। আপনার এই সফর সফল হোক। আপনি দীর্ঘজীবী হোন। জয় বাংলা।

লেখক: শিক্ষক, বিজনেস স্টাডিজ বিভাগ ও সহকারী প্রক্টর, নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, রাজশাহী
shyamoluits@gmail.com