প্রিজন ভ্যানে হামলা || আটক ৬৯ প্রস্তুতি চলছে দুই মামলার

আপডেট: জানুয়ারি ৩১, ২০১৮, ১২:৪৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় আদালতে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া-সংগৃহীত

রাজধানীর হাইকোর্ট এলাকায় পুলিশের প্রিজন ভ্যানে হামলা ও ছাত্রদলের দুই কর্মীকে ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনায় ৬৯ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় শাহবাগ থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। দুই মামলায় আটক হওয়া ৬৯ জনসহ বিএনপির শীর্ষ নেতাকর্মীদের অনেককেই আসামি করা হবে। পুলিশ সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, ‘মামলার প্রস্তুতি চলছে। হামলার পর ৬৯ জনকে আটক করা হয়েছে। হামলায় অংশ নেয়া অন্য আসামিদেরও গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে।’
মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) বিকাল পৌনে চারটার দিকে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার শুনানি শেষে আদালত থেকে গুলশানে ফিরছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এসময় হাইকোর্ট এলাকায় আগে থেকে জড়ো হওয়া বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা পুলিশের একটি প্রিজন ভ্যানে হামলা চালান। তারা প্রিজন ভ্যান ভাঙচুর করে ভেতরে থাকা ছাত্রদলের দুই কর্মীকে ছিনিয়ে নিয়ে যান। এঘটনায় শাহবাগ থানার এএসআই হান্নান এবং একজন কনস্টেবল আহত হন। এসময় বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশের একটি রাইফেলের বাটও ভেঙে ফেলে।
পুলিশ সূত্র জানায়, হামলার পর শাহাবাগ ও রমনা থানা পুলিশসহ গোয়েন্দা পুলিশের সদস্যরা হাইকোর্ট এবং আশেপাশের এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রথমে ২২ জনকে আটক করেন। পরে সন্ধ্যায় আরও ৪৭ জনসহ মোট ৬৯ জনকে আটক করা হয়। আটক ব্যক্তিদের যাচাই-বাছাই করে বুধবার (৩১ জানুয়ারি) আদালতে পাঠানো হবে।
পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, প্রিজন ভ্যানে হামলার ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। প্রিজন ভ্যানে হামলা, পুলিশের কর্তব্য ও কাজে বাধা সৃষ্টি ও অস্ত্র ভাঙচুরের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করা হবে। অন্য মামলাটিও হবে পুলিশের কর্তব্য-কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে। আটক হওয়া ব্যক্তিদের দুটি মামলায় গ্রেফতার দেখানো হবে। এছাড়া, মামলায় হুকুমের আসামি হিসেবে বিএনপির শীর্ষ নেতাদের অনেকের নাম থাকতে পারে।
সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায় উপলক্ষে বিএনপি নেতাকর্মীরা যাতে কোনও অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করতে না পারেন, সেজন্য আগে থেকেই ধরপাকড়ের অভিযোগ উঠেছিল। এখন এই দুই মামলায় অজ্ঞাতনামা কয়েকশ’ ব্যক্তিকে আসামি করে গ্রেফতার অভিযান চালানো হবে।
শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান বলেন, ‘প্রিজন ভ্যানে হামলার ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ সদস্য বাদী হয়ে এই মামলা দায়ের করবেন।আটক ব্যক্তিরাসহ মামলায় আরও অনেককেই আসামি করা হবে।’
উল্লেখ্য, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার শুনানি শেষে খালেদা জিয়া আদালত থেকে ফেরার পথে গত দুই মাসে এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো এ ঘটনা ঘটলো।
তথ্যসূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ