ফেব্রুয়ারির শেষ ভাগে শিলাবৃষ্টি-বজ্রঝড়

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৮, ১২:১৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মাঘের শেষ আর ইংরেজি ফেব্রুয়ারি মাসের শুরুতে আরেকটি শৈত্যপ্রবাহের আভাস দিয়েছিলো আবহাওয়া অধিদফতর। তবে গড় তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশিই থাকবে। আর এ মাসের শেষ ভাগে শিলাবৃষ্টিসহ বজ্রঝড়েরও আশঙ্কা রয়েছে। তবে উত্তরাঞ্চলে আগামী দু’একদিনের মধ্যে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।
আবহাওয়ার দীর্ঘ মেয়াদী পূর্বাভাস দিতে বিশেষজ্ঞ কমিটির নিয়মিত বৈঠকে জানুয়ারি মাসে সংঘটিত আবহাওয়ার বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত পর্যালোচনা করে এসব আশঙ্কার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। আগারগাঁওয়ে আবহাওয়া অধিদফতরের ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রে বৃহস্পতিবার (০১ ফেব্রুয়ারি) এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ এতে সভাপতিত্ব করেন।
জানুয়ারি মাসের প্রাপ্ত আবহাওয়া উপাত্ত, ঊর্ধ্বাকাশের আবহাওয়া বিন্যাস, বায়ুমণ্ডলের বিভিন্ন স্তরের বিশ্লেষিত আবহাওয়া মানচিত্র, জলবায়ু মডেল, এল নিনো/লা নিনো’র অবস্থা বিশ্লেষণ করে ফেব্রুয়ারি মাসের জন্য দীর্ঘ মেয়াদী পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।
দীর্ঘ মেয়াদী পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, ফেব্রুয়ারি মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা কম বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। এ মাসের প্রথমার্ধে দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের উপর দিয়ে ১টি মৃদু (৮-১০ সেলসিয়াস) শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথমার্ধে দেশের নদ-নদীর অববাহিকা ও অন্যত্র সকালের দিকে হালকা/মাঝারি ধরনের কুয়াশা থাকার সম্ভাবনা আছে। তবে ফেব্রুয়ারি মাসে গড় তাপমাত্রা স্বাভাবিক অপেক্ষা কিছুটা বেশি থাকতে পারে।
‘ফেব্রুয়ারি মাসের দ্বিতীয়ার্ধে দেশের উত্তর, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে ১-২ দিন শিলাবৃষ্টিসহ বজ্রঝড় হতে পারে।’
আবহাওয়াবিদ আবদুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, চলমান শৈত্যপ্রবাহের মধ্য দিয়ে এ মৌসুমের শৈত্যপ্রবাহ বিদায় নিচ্ছে। তবে দু’এক জায়গায় বিচ্ছিন্নভাবে দু’একটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। সেগুলো বেশি প্রভাব ফেলবে না। ধীরে ধীরে তাপমাত্রা বাড়তে থাকবে।
তাপমাত্রা, শৈত্যপ্রবাহ, কুয়াশা, কৃষি আবহাওয়া এবং দেশের নদ-নদীর অবস্থা জানুয়ারি মাসের পূর্বাভাসের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ ছিলো বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।
শুক্রবার সন্ধ্যার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সারাদেশে অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। শেষ রাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের নদী অববাহিকার কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা এবং দেশের অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। সারাদেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে।
আগামী দু’দিনের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দেশের উত্তরাংশে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। আর বর্ধিত ৫ দিনের আবহাওয়ার অবস্থায় বলা হয়, রাতের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেতে পারে।
শুক্রবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিলো পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল পটুয়াখালীর খেপুপাড়ায় ২৮.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিন ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়।
তথ্যসূত্র: বাংলানিউজ