বগুড়ায় দু’দল সন্ত্রসীদের মধ্যে গুলি বিনিময় || সন্ত্রাসী মিনকো নিহত

আপডেট: March 11, 2020, 12:42 am

বগুড়া প্রতিনিধি


বগুড়া শহরের কলোনি এলাকার কুখ্যাত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ১৫ মামলার আসামি কবির হোসেন ওরফে মিনকো দু’দল দুষ্কৃতকারীর মধ্যে গুলি বিনিময়কালে নিহত হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি রিভলবার, ৮ রাউন্ড রিভলবারের গুলি, একটি ওয়ান শুটার গান, একটি লম্বা চাপাতি এবং একটি অত্যাধুনিক বার্মিজ চাকু উদ্ধার করেছে। এদিকে মিনকো নিহতের ঘটনায় কলোনি এলাকায় আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে এলাকার ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ।
বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, সোমবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে শহরের মালতীনগর ভাটকান্দি ব্রিজ এলাকায় প্রচণ্ড গোলাগুলির শব্দ শুনে ওসি সদর এসএম বদিউজ্জামান, ওসি ডিবি আসলাম আলীসহ তাদের টিম ঘটনাস্থলে যায়। সেখানে গিয়ে তারা এক ব্যক্তিকে গুরুতর আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে তাকে উদ্ধার করে দ্রুত শজিমেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। জরুরি বিভাগে উপস্থিত লোকজন তাকে কলোনি এলাকার মিনকো হিসেবে সনাক্ত করে। নিহত কবির হোসেন মিনকো চকফরিদ এলাকার মো. আজিজুল হকের ছেলে।
তিনি জানান, পুলিশের রেকর্ড পর্যালোচনা করে তার নামে ১৫ টির অধিক মামলা পাওয়া যায়। জোড়াখুন, খুন, চাঁদাবাজি, অস্ত্র এবং মারাত্মক জখমের অভিযোগে এ মামলাগুলো রেকর্ড হয়েছিল বলে পুলিশের নথিসূত্রে জানা যায়। সর্বশেষ ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসে অস্ত্রসহ আটক হয়ে বেশকিছুদিন জেল খেটে মাস চারেক আগে বের হয়ে পুনরায় চাঁদাবাজি শুরু করলে তার বিরুদ্ধে সদর এবং শাজাহানপুর থানায় ৬ টি জিডি এন্ট্রি হয়েছিল বলে জানা যায়।
পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি রিভলবার, ৮ রাউন্ড রিভলবারের গুলি, একটি ওয়ান শুটার গান, একটি লম্বা চাপাতি এবং একটি অত্যাধুনিক বার্মিজ চাকু উদ্ধার করেছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
এদিকে কলোনি এলাকার সন্ত্রাসী মিনকো দু’দল দুষ্কৃতকারীর মধ্যে গুলি বিনিময়কালে নিহত হয়েছে খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকার ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ আনন্দ মিছিল বের করে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১২ টার দিকে বোবা স্কুল থেকে মিছিলটি বের হয়ে এলাকার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এসময় মিছিলকারীরা বলেন, মিনকো ও তার ভাই এলাকায় সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত। তাদের সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ও চাঁদাবাজীতে এলাকার মানুষ অতিষ্ট ছিলো।