বগুড়ায় যাত্রীবাহি বাসে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ: আহত ৩ যুবদল নেতা গ্রেফতার

আপডেট: অক্টোবর ১১, ২০১৮, ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ

বগুড়া প্রতিনিধি


২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় ঘোষণার পর বগুড়ার শাজাহানপুরে নাবিল ক্লাসিক (ঢাকা মেট্রো-ব-১৫-০৬৪৪) নামে রংপুর থেকে ঢাকাগামী একটি যাত্রীবাহী বাসে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করেছে দুর্বৃত্তরা। বোমার আঘাতে ৩ নারী আহত হয়েছে। এঘটনায় জেলা যুবদলের সহ কৃষি বিষয়ক সম্পাদক শাজাহানপুর উপজেলার মাঝিড়াপাড়ার খাজা মিয়ার ছেলে নুর মাহমুদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
গতকাল বুধবার রায় ঘোষণার পর দুপুর ২টার দিকে উপজেলার সাজাপুর রাধারঘাট এলাকায় টিএমএসএস ফিলিংস স্টেশনের সামনে এই ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন, নীলফামারী সদর উপজেলার মোজাম্মেল হকের স্ত্রী আঞ্জুয়ারা বেগম (৫০), শিমুলবাড়ি গ্রামের নজরুল ইসলামের স্ত্রী মুনিরা বেগম (৪০) ও টাঙ্গাইল শান্তিনগর গ্রামের সামছুল হকের মেয়ে শামীমা (২৭)।
প্রত্যক্ষদর্শী কোচের যাত্রী জানান, দুর্বৃত্তরা পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করলে চালক কোচ থামিয়ে দেন। এরপর দুর্বৃত্তরা কোচ ভাঙচুর করে। তার সামনের সিটে আগুন ধরে গেলে তিনি সন্তানকে নিয়ে জানালা দিয়ে নেমে পড়েন।
কোচের ড্রাইভার আসলাম হোসেন জানান, দুর্বৃত্তরা প্রথমে একটি ট্রাককে আক্রমণ করে। পরে আরেকটি যাত্রীবাহী বাসে বোমা ছুড়লে তা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। পরে পিছনে থাকা নাবিল পরিবহনে বোমা নিক্ষেপ করে। বাসের মধ্যে আগুন ধরে গেলে পরে বাস থামিয়ে আগুন নিভানো হয়।
শাজাহানপুর থানার ওসি জিয়া লতিফুল জানায়, নীলফামারী থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী নাবিল পরিবহনের একটি কোচ বুধবার বেলা ২টার দিকে বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার সাজাপুর এলাকায় ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে পৌঁছলে ৮-১০ জন দুর্বৃত্ত কোচ লক্ষ্য করে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে। পেট্রোল বোমার আঘাতে ৩ যাত্রী আহত হন। এ সময় টহল পুলিশ ধাওয়া করে শাজাহানপুরের মাঝিরাপাড়া গ্রামের খাজা মিয়ার ছেলে জেলা যুবদলের সহ কৃষি বিষয়ক সম্পাদক নুর মাহমুদকে গ্রেফতার করে।
আহতদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এদিকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে আহতদের পাওয়া যায়নি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ