বদলগাছীতে পাটের বাম্পার ফলন || ভাল দাম পেয়ে কৃষকের মুখে হাসি

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮, ১২:৪০ পূর্বাহ্ণ

এমদাদুল হক দুলু. বদলগাছী


বদলগাছীতে পাটের আঁশ ধুয়ে তুলছেন কৃষকরা-সোনার দেশ

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে চলতি মৌসুমে পাটের বাম্পার ফলন ও বাজারে ভাল দাম পাওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। বিশেষ করে নদী এলাকা চরাঞ্চলে ও উঁচু জমিতে পাট চাষাবাদ বেশি হয়েছে।
সরজমিনে গিয়ে বদলগাছী উপজেলা মথুরাপুর, বালুভরা, আধাইপুর, ও বদলগাছী সদর, বিলাশবাড়ী, পাহাড়পুর, কোলা ও মিঠাপুর ইউনিয়ন ঘুরে আশানুরূপ পাট চাষ লক্ষ্য করা গেছে।
বদলগাছী উপজেলার কৃষক হামিদ বলেন, পাট চাষে খরচ অনেক বেশি বাজারে কয়েক বছর থেকে পাটের দাম ভাল না থাকায় পাট চাষাবাদ করা আমি আগের থেকে কমিয়ে দিয়েছি ।
আগে ২-৩ বিঘা জমিতে পাট চাষাবাদ করতাম আর এ বছর ১ বিঘা জমিতে পাট চাষ করেছি পাটের ফলোনও ভালো পেয়েছি বর্তমান বাজারে পাটের দামও ভাল রয়েছে তাই এবছর মনে হয় কিছু লাভের মুখ দেখবো । তিনি আরো বলেন চরাঞ্চলে ধান চাষাবাদ করা যায় না। তাই আমরা এলাকার কৃষকরা এ সব জমিতে পাটসহ বিভিন্ন রবিশষ্য চাষাবাদ করে আসছি।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে উপজেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ২হাজার ১শ হেক্টর জমি কিন্তু চাষ হয়েছে ১ হাজার ৯ শ ৪৫ হেক্টর । এরমধ্যে দেশিয় জাতের পাট চাষাবাদ হয়েছে ৫০ হেক্টর আর তোষা জাতের পাট চাষাবাদ হয়েছে ১ হাজার ৮শ ৯৫ হেক্টর জমিতে । যা লক্ষ্য মাত্রার চেয়ে ১শ ৫৫ হেক্টর কম। এর মধ্যে কৃষকরা নতুন পাট বাজারে তুলতে শুরু করেছে।
বর্তমান পাট চাষে খরচ বেশি হওয়ায় এলাকার কৃষকরা পাট চাষাবাদ না করে অধিক লাভের আশায় সবজি চাষাবাদের দিকে ঝুঁকছে। অপরদিকে বদলগাছী হাট-বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজরে নতুন তোষা জাতের পাট প্রতি মণ বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৭ শ টাকা থেকে ১ হাজার ৯ শ টাকা পর্যন্ত। তাই এবছর কৃষকরা নতুন পাটের বাজার দর ধান ও গমের থেকে দাম বেশি হওয়ায় এলাকার পাট চাষিদের মুখে একটু হলেও হাসি ফুটেছে।
বদলগাছী উপজেলার কৃষি অফিসার হাসান আলী বলেন, চলতি মৌসুমে পাট চাষাবাদের সময় অধিক বৃষ্টিপাত হওয়ায় এবছর পাট চাষাবাদ একটু কম হয়েছে। পরে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় পাটের ফলনও ভাল হয়েছে। তিনি আরো বলেন, এবছর পর্যাপ্ত পরিমান বৃষ্টিপাত হওয়ায় এলাকার কৃষকদের পাট কেটে জাগ দেওয়ার কোন ধরণের সমস্যা হয়নি। অপরদিকে এবার পাটের দামও বাজারে ভাল রয়েছে এবং শেষ পর্যন্ত বাজার দর ভাল থাকলে আগামীতে পাট চাষ বৃদ্ধি পাবে ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ