বদলগাছী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স || চিকিৎসকের বিরুদ্ধে রোগি ও স্বজনদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৭, ১:২২ পূর্বাহ্ণ

বদলগাছী প্রতিনিধি


নওগাঁর বদলগাছী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে রোগি ও রোগির স্বজনদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীরা। গতকাল সোমবার অভিযোগের অনুলিপি নওগাঁ সিভিল সার্জন, পরিচালক (স্বাস্থ্য) রাজশাহী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী, স্বাস্থ্য সচিব, জেলা প্রশাসক নওগাঁ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বদলগাছী বরাবরে প্রেরণ করা হয়েছে।
উপজেলা সদর কলেজপাড়া (জিধিরপুর) গ্রামের আবু সাইদের লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ সেপ্টেম্বর রোববার বিকেল ৫টায় উপজেলার চাংলা গ্রামের ছানোয়ার হোসেনের স্ত্রী মৌসুমি হঠাৎ করে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে দ্রুত বদলগাছী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নেয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত ডা. অরিফুজ্জামান রাসেল গুরুত্বের সঙ্গে চিকিৎসা সেবা না দিয়ে যেনতেনভাবে ব্যবস্থাপত্র দিয়ে বিদায় করছিলেন। খবর পেয়ে মৌসুমীর স্বামীর বড় ভাই জরুরি বিভাগে উপস্থিত হয়ে মৌসুমীর কাছে তার অসুস্থ্যতার বিষয়ে খোঁজ খবর নিতে গেলে ডা. আরিফুজ্জামান রাসেল উত্তেজিত হয়ে বলেন রোগির কাছে এভাবে রোগের বর্ণনা জানতে চাওয়া ঠিক নয় বলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এবং বিভিন্ন আজেবাজে কথা বলতে থাকেন।
রোগির সঙ্গে থাকা তার মামী জামেনা বেগম জানান, মৌসুমীকে জরুরি বিভাগে আনার পর ওই ডাক্তার রোগির কাছে তার রোগের বর্ণনা তেমন একটা না জেনেই ব্যবস্থাপত্র দিয়ে বিদায় করেন এবং ডাক্তার হিসেবে তার ব্যবহারটা মোটেই সন্তোষজনক নয়। একজন ডাক্তারের আচার-আচারণ ও তার ব্যবহার যদি ভালো না হয় তাহলে তার কাছে চিকিৎসা সেবার মান নিয়ে রোগির অভিভাবকেরা দুশ্চিন্তা ও টেনশনে পড়বে।
অপরদিকে গত ১৫ আগস্ট রাত সাড়ে ১০ টায় উপজেলা সদরের কলেজপাড়া (জিধরপুর) গ্রামের মৃত খায়রুল ইসলামের স্ত্রী রিনা (৬০) গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে সঙ্গে সঙ্গে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে ওইদিনও কর্তব্যরত চিকিৎসক আরিফুজ্জামান রাসেল রোগির অভিভাবকের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। ওইদিন রাতে অসুস্থ্য রিনার প্রতিবেশী ভাগিনা আবু সাইদ, তার ছেলে সোহাগ ও তার স্ত্রী নাসরিন জানায়, সেই দিনও তারা চিকিৎসক আরিফুজ্জামানের দুর্ব্যবহারের শিকার হয়েছেন।
অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল সোমবার সরজমিনে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিভিন্ন শ্রেণির কর্মকর্তা কর্মচারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ডা. আরিফুজ্জামান রাসেল বদলগাছী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগদানের পর থেকে তিনি বহির্বিভাগ, জরুরি বিভাগ ও ভর্তি রোগি এবং রোগির অভিভাবকদের সঙ্গে প্রায়ই দুর্ব্যবহার করে থাকেন। এমন কি স্টাফদের সঙ্গেও ভালো ব্যবহার করেন না। ডা. আরিফুজ্জামান রাসেলের সঙ্গে ডিউটি পড়লে আগত রোগি বা অভিভাবকদের সঙ্গে তার দুর্ব্যবহারের কারণে স্টাফরা বরাবরই বিব্রত অবস্থায় পড়েন। তারা আরো জানান, গত ৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে উপজেলার দেউলিয়া গ্রামের মৃত আনিছুরের ছেলে বেলাল (৫২) কিটনাশক পান করায় তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে আনা হলে বেলালের ওয়াস চলকালীন সময়ে উপস্থিত বেলালের আত্মীয় স্বজনেরা তাকে দেখার জন্য আসলে ডা. আরিফুজ্জামান রাসেল তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন এখানে কি বাইসকোপ আনা হয়েছে যে, আপনারা এভাবে ভিড় করছেন। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বেলালের উপস্থিত স্বজনদের ডা. আরিফুজ্জানের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা শুরু হলে উপস্থিত উপসহকারী মেডিকেল অফিসারসহ অনেকেই এগিয়ে এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন। ডা. আরিফুজ্জামানের এমন কর্মকাণ্ডের জন্য কোন স্টাফ ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারে না। কারণ হিসেবে তারা জানান, সে বদলগাছী উপজেলার স্থানীয় হওয়ায় কাউকে তোয়াক্কা করে না। সে অত্যন্ত বদমেজাজী এবং সব সময় উগ্র অবস্থায় থাকেন।
এ বিষয়ে মোবাইলে ডাক্তার আরিফুজ্জামান রাসেলের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. রুহুল আমিন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জাহিদ নজরুল চৌধুরী এবং নওগাঁ সিভিল সার্জন ডা. রওশন আরা খানম বলেন, চিকিৎসা নিতে আসা রোগি বা তার অভিভাবকের সঙ্গে কোন ডাক্তারের এমন আচরণ কাম্য নয়। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগের পাওয়া গেছে। তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ বিষয়ে ডা. আরিফুজ্জামান রাসেলের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।