বরেন্দ্রর লাল মাটিতে হলুদ তরমুজ চাষে সফল কৃষক মুনির

আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০১৮, ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ

আলমগীর কবির তোতা, গোদাগাড়ী


বরেন্দ্রর লাল মাটিতে হলুদ তরমুজ চাষে সফলতা লাভ করেছেন কৃষি উদ্যোক্তা মনিরুজ্জামান মুনির। মনিরুজ্জামান মুনির প্রথমে গোদাগাড়ী উপজেলার ঈশ্বরীপুরে তিন বিঘা জমিতে পরীক্ষা মূলকভাবে গোল্ডেন ক্রাউন নামের হাইব্রীড জাতের তরমুজ চাষ করেন। তরমুজের গাছ বাড়তে থাকলে বিশেষ মাচা তৈরি করেন। মাচায় লতাপাতা ছড়িয়ে পড়লে ফুল ও ফল দেখা দেয়। তরমুজ সবুজ হলেও ভিতরের অংশ দেখতে হলুদ এবং খেতে অত্যন্ত সুস্বাদু। মুনিরুজ্জামান মুনির বলেন, প্রতি বিঘায় তরমুজ চাষে খরচ হয়েছে ৩৫ হাজার টাকা। আর এক বিঘায় উৎপাদন হয়েছে ১২০ মন। প্রতি কেজি তরমুজ বিক্রি হয়েছে ৭০ টাকায়। তিন বিঘায় লাভ হয়েছে দেড় লাখ টাকা। এই কৃষককে তরমুজ চাষে কারিগরি ও পরামর্শ দিয়ে সহযোগীতা করেছেন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা অতনু সরকার। মাঠ পর্যায়ের এই কৃষি কর্মকর্তা বলেন, তরমুজ চাষে জৈব সার ব্যবহার করায় তেমন কীটনাশক ও রাসায়নিক সারের তেমন প্রয়োজন হয়নি। তরমুজ চাষকৃত জমিতে মাটির নিচে পলিথিন দেওয়া হয়। এতে করে আগাছা হয়না এবং সেচের পানি ও সার ধরে রাখায় মাটির উর্বরতা শক্তি বৃদ্ধি পায়। গোদাগাড়ী অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা লুৎফুর নাহার বলেন, অতিরিক্ত সার প্রয়োগ ছাড়াই তরমুজ উৎপাদন হওয়ায় এতে পুষ্টিগুন বেশি পাওয়া গেছে। মুনির হলুদ তরমুজ চাষ করে লাভবান হওয়ায় এ অঞ্চলের অন্য কৃষকেরা তরমুজ চাষে আগ্রহ দেখাচ্ছে। আগ্রহী কৃষকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।