বর্ষার আত্মহত্যা মামলা তদেন্তর স্বার্থে মোহনপুর থানার ওসি প্রত্যাহার, মামলা ডিবিতে হস্তান্তর

আপডেট: মে ২১, ২০১৯, ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ও মোহনপুর প্রতিনিধি


রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার স্কুলছাত্রী সুমাইয়া আক্তার বর্ষার অপমৃত্যুর তদন্তের স্বার্থে মোহনপুর থানার ওসি আবুল হোসেনকে প্রত্যাহার করে জেলা পুলিশে সংযুক্ত করা হয়েছে। গতকাল সোমবার রাতে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
জেলা পুলিশ সুপার মো. শহীদুল্লাহ জানান, সুমাইয়া আক্তার বর্ষার আত্মহত্যার মামলার তদন্ত ও প্রশাসনিক স্বার্থে মোহনপুর থানার ওসি আবুল হোসেনকে প্রত্যাহার করে জেলা পুলিশে সংযুক্ত করা হয়েছে। এছাড়া মামলার তদন্তের দায়িত্ব জেলা গোয়েন্দা পুলিশকে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া অভিযোগ নেওয়ার ক্ষেত্রে ওসির গাফিলতি আছে কি না, তা তদন্ত করতেও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মতিউর রহমান সিদ্দিকীকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
গত ১৬ জুন লাঞ্ছনা ও গঞ্জনা সইতে না পেরে আত্মহত্যা করে মোহনপুর উপজেলার বাকশিমইল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া আক্তার বর্ষা। এর আগে ২৩ এপ্রিল অপহরণ করা হয় তাকে। সেসময় তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলেও অভিযোগ পরিবারের। এঘটনায় অপহরণ ও আত্মহত্যা মামলায় মোট ১৫ জুনকে আসামি করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রধান আসামি মুকুলসহ ৯ জন গ্রেফতার রয়েছে।
পরিবারের অভিযোগ, অপহরণের পর পুলিশকে মামলা দিতে গেলে মামলা নেয়নি পুলিশ। বরং হুমকি ও ধামকি দেয়া হয়েছে। অপহরণের চারদিন পর পুলিশ সুপারের নির্দেশে মামলা নেয় মোহনপুর থানার ওসি আবুল হোসেন। এখনো বর্ষার পরিবারকে মামলাটি ভিন্নখাতে নিতে নানাভাবে প্রলোভন দিচ্ছে ওসি আবুল হোসেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ