বসন্ত ও ভালোবাসার দিবসে উপহারের স্টলগুলোতে উপচে পড়া ভিড়

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ণ

তারেক মাহমুদ


দিবসকে কেন্দ্র করে নগরীর ফুলের দোকানে ক্রেতাদের ভিড়-সোনার দেশ

পহেলা ফাল্গুন ফুলের বসন্ত, মধুমর বসন্ত, যৌবনের উদ্দামতার বয়ে আনার বসন্ত, আর আনান্দ উল্লাস উদ্বেলতায় মন প্রাণ কেড়ে বসন্তের প্রথম দিনে রাজশাহীতে ছিলো প্রাণের মেলা। বসন্তের নতুন আগামবার্তা ছিলো সবার কাছে প্রিয়। তাই প্রিয়জনের মাঝে ভালোবাসা ভাগাভাগি করতে নগরীর বিভিন্ন মার্কেট, বিপণি বিতান, ফাসফুড, গিফ্টের দোকন, খাবারের বিভিন্ন দোকানগুলোতে গিয়ে দেখা যায় উপচে পড়া ভিড়।
প্রিয়জন ও পরিবারের ছোট থেকে বড় বাদ যায়নি কেউ, সকলেই প্রিয় মানুষের জন্য নিজের সাধ্য অনুযায়ী চেষ্টা করেছে উপহার দেয়ার।
নগরীর জিরো পয়েন্টের আইডিয়াল প্রোডাক্ট এ গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন কার্ড গোছাতে ব্যস্ত দোকানের ম্যানেজার হাসিবুল হাসান ও কর্মচারীরা। তিনি জাসালেন, বসন্ত ও ভালোবাসার দিবসকে কেন্দ্র করে প্রতিবছরই বিভিন্ন প্রকারের কার্ডের অর্ডার বেড়ে যায়। এবারো তার ব্যতিক্রম ঘটেনি” পারিবারিক, বিয়ে আর উপহারের বিভিন্ন কার্ডের বিক্রি বেড়ে গেছে। নগরীর রাণীবাজার এলাকার ফ্রেন্ডস এমপেরিয়ামে দেখা যায়, মেয়েদের কেনাকাটার ব্যস্ততা। প্রিয়জনের জন্য সকলেই উপহার বাছাই করছে। দোকানের ম্যানেজার রতনকুমার রায় জানান, সব উপহারের মাঝে বর্তমানে হার্ট টাইপের উপহার বেশি বিক্রি হচ্ছে। বিভিন্ন সৌখিন মগ, শোপিস, টেটিবেয়ার,পার্টস, বডি স্প্রে, ব্যাগ, মানি ব্যাগ ইত্যাদি বেশি বিক্রি হচ্ছে। প্রিয়জনের জন্য উপহার কিনতে আসা রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থী নাফিসা আনজুম পূরবী ও মেহের জাহান রুপ বলেন, বসন্ত এবং ভালোবাসা দিবস কাছাকাছি তাই প্রিয় বন্ধু-বান্ধবী এবং পরিবারের ভালোবাসার মানুষদের জন্য কিছু না কিছু কিনতেই হয়। এই সময় বিভিন্ন চকলেট, গহনা, টেডিবেয়ার ও শোপিস উপহারের জন্য কেনা হয়, আজকে টেডিবেয়ার কিনতে এসেছি। নগরীর জিরো পয়েন্ট এলাকার ফুড ভিউয়ের ম্যানেজার জানান, সকাল থেকেই দোকানে সব খাবারের আইটেম বেশি থাকলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে অনেটাই ফুরিয়ে গেছে। আজ বিক্রি অনেটা বেশি। সব থেকে বেশি বিক্রি হচ্ছে, বিভিন্ন ধরনের চকলেট। তাই ক্যাটবেরি মিল্ক ১২০ থেকে ২৫০, কিটকাট ৪০ থেকে ৫০ এবং সকল চকলেট ৫০ থেকে প্রায় ২৫০ থেকে ৮০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। এদিকে ফাসফুড ও কনফেকশনারিগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, পরিবার-পরিজন প্রিয় মানুষকে নিয়ে খেতে এসেছেন অনেকেই। নগরীর চিলিস, ফ্লেভার্স, অর্ডারআপ, ফুড ভিউ, বিশাল, আহার এবং বিভিন্ন খাবারের দোকানে ছিলো বিভিন্ন খাবারের নিত্য নতুন খাবারের ব্যাপক আয়োজন। নগরীর রাণীবাজার এলাকার পেস্টি শপ অ্যান্ড চকলেট কনফেকশনারির ম্যানেজার জানান, খাবারের মাঝে বিভিন্ন চকলেট ও কেকের আইটেম বেশি বিক্রি হচ্ছে। কেকের মাঝে ব্লাক ফরেস্ট কেক ৬০০ টাকা পাউন্ড, লেমন ৫০০, ক্যারামেল ৫০০টাকা পাউন্ড, ইস্টোবেরি ৫৫০, মলটেট চকলেট ৫৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ