বাংলাদেশে ব্যবসা বাড়াতে চায় গ্যাজপ্রম

আপডেট: এপ্রিল ১৭, ২০১৭, ১২:১৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



ঢাকায় সম্প্রতি অফিস খোলা রুশ কোম্পানি গ্যাজপ্রম বাংলাদেশে তাদের ব্যবসা বাড়াতে চায়। রাশিয়ার এই রাষ্ট্রায়ত্ত কোম্পানির চেয়ারম্যান অ্যালেক্সি মিলার বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচএম মাহমুদ আলীকে বলেছেন, বিশ্বে গ্যাজপ্রমের কাজের যে বিস্তার, তার তুলনায় বাংলাদেশে তাদের উপস্থিতি নিতান্তই সামান্য।
কেবল খনিজ উত্তোলন নয়, বাংলাদেশে জ্বালানি উৎপাদন ও বিতরণ, এলএনজি সঞ্চালন ব্যবস্থা ও টার্মিনাল নির্মাণ এবং পাইপলাইন বসানোর মত কাজেও গ্যাজপ্রমকে সম্পৃক্ত করার বিষয়টি বিবেচনার আহ্বান জানান তিনি। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দ্বিপক্ষীয় সফরে মস্কোয় থাকা মাহমুদ আলী শনিবার গ্যাজপ্রম কার্যালয় পরিদর্শন করেন।
গ্যাজপ্রম চেয়ারম্যানের আগ্রহকে তিনি স্বাগত জানান এবং বাংলাদেশে বিনিয়োগ আরও বাড়ানোর আহ্বান জানান বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।
২০১৩ সাল থেকে বাংলাদেশের সাতটি গ্যাসক্ষেত্রে এ পর্যন্ত ১৫টি পরীক্ষামূলক কূপ খনন করেছে রাশিয়ার এই কোম্পানি। ভোলায় আরও দুটি পরীক্ষামূলক কূপ খননের বিষয়ে সম্প্রতি পেট্রোবাংলার সঙ্গে চুক্তি করেছে গ্যাজপ্রম।
মিলার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সামনে এশিয়া ও ইউরোপে গ্যাজপ্রমের বিপুল কর্মযজ্ঞের বিবরণ তুলে ধরেন, যা থেকে বছরে ৯ কোটি ডলার আয় হয়।
বাংলাদেশে ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য তিনি একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের ওপর জোর দেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে থাকা জ্বালানি সচিব নাজিম উদ্দিন চৌধুরী তাকে জানান, এ বিষয়ে একটি খসড়া তৈরির কাজ চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।
গ্যাজপ্রমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আন্দ্রেই ফিক তার কোম্পানির কার্যক্রম ও সাম্প্রতিক বিভিন্ন সাফল্যের কথা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সামনে তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশে নতুন কাজে যুক্ত হওয়ার জন্য তার কোম্পানি প্রস্তুত।
বাংলাদেশের সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্ক সাম্প্রতিক সময়ে নতুন গতি পেয়েছে। দুই দেশ কূটনৈতিক ও অফিসিয়াল পাসপোর্টধারীদের জন্য ভিসা ছাড়া ভ্রমণের সুযোগ দিতে সমঝোতা স্মারকে সই করেছে। এছাড়া অর্থ-বাণিজ্য, গবেষণা ও প্রযুক্তি সহযোগিতার বিষয়ে একটি আন্তঃসরকার কমিশন গঠনেও দুই দেশের মধ্যে চুক্তি হয়েছে।