বাগমারায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ভেস্তে গেলো পুকুর খনন

আপডেট: জুন ১, ২০১৯, ১:০৬ পূর্বাহ্ণ

বাগমারা প্রতিনিধি


পালিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের হাত থেকে নিজেদের রক্ষা করলেন আবাদী জমিতে পুকুর খননকারিরা। ঘটনাটি ঘটেছে রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার হামিরকুৎসা ইউনিয়নের শ্রীপতিপাড়া গ্রামে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের দলটি ঘটনাস্থলে কাউকে না পেয়ে মাটিকাটা মেশিন দুইটি গুড়িয়ে দিয়েছেন। ওই ঘটনার পর থেকে পুকুর খননকারিরা এলাকা ছেড়েছে বলে এলাকার লোকজন জানিয়েছেন।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলার হামিরকুৎসা ইউনিয়নের শ্রীপতিপাড়া গ্রামের জসিমউদ্দীন, আবদুর রশীদ ও প্রবাসী ডুপ্লে মিলে আবাদী জমিতে পুকুর খনন করছিল। বিষয়টি জানার পর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল হায়াত তাদেরকে আবাদী জমিতে পুকুর খনন করতে নিষেধ করেন। পুকুর খননকারিরা পুকুর খনন করবেনা বলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল হায়াতকে জানিয়ে রাতারাতি পুকুর খননের কাজ শুরু করে। গত বৃহস্পতিবার সারা রাত দুইটি মাটিকাটা মেশিন আবাদী জমিতে পুকুর খনন করে বলে এলাকার লোকজন জানান। রাতারাতি পুকুর খনন করার পরে গতকাল শুক্রবার ছুটির দিন বলে আবারো পুকুর খননের কাজ শুরু করে। বিষয়টি জানার পর সহকারী কমিশনার (ভুমি) আবুল হায়াত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে পুকুর খননকারিরা পালিয়ে যায়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের দলটি কাউকে আটক করতে না পেরে পুকুর খননের ব্যবহৃত মাটিকাটা মেশিন দুইটি গুড়িয়ে দেয়।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল হায়াত বলেন, নিষেধ অমান্য করে শ্রীপতিপাড়া গ্রামের প্রভাবশালীরা আবাদী জমিতে পুকুর খনন করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। তিনি জানান, অভিযানের বিষয়টি জানতে পেরে পুকুর খননকারিরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। পরে পুকুর খননের কাজ বন্ধ রাখার জন্য মাটিকাটা মেশিন দুইটি নষ্ট করা হয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ