বাঘায় মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করতে গিয়ে চার পুলিশসহ আহত ৬

আপডেট: অক্টোবর ৭, ২০১৯, ১:২১ পূর্বাহ্ণ

বাঘা প্রতিনিধি


রাজশাহীর বাঘায় মাদক ব্যবসায়ী মিলন হোসেনকে গ্রেফতার করতে গিয়ে পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টরসহ ৬ জন আহত হয়েছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার ভানুকর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।
জানা যায়, উপজেলা ভানুকর গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে রিপন হোসেনের বাড়িতে একই গ্রামের মাসুম হোসেনের ছেলে মিলন হোসেন (৩২) বস্তায় ফেন্সিডিল প্যাকেট করে চালান দেয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এ সংবাদ পেয়ে বাঘা থানার পুলিশ ওই বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশের উপস্থিত টের পেয়ে রিপন হোসেন পালিয়ে যায়। কিন্তু মিলন হোসেন পালাতে না পেরে ওই বাড়ির ঘরের মধ্যেই থেকে যায়। এ সময় পুলিশ মিলন হোসেনকে গ্রেফতার করতে গেলে তার কাছে থাকা বড় হাসুয়া দিয়ে পুলিশের উপর আক্রমণ করতে আসে। এসময় পুলিশ ঘরের দরজা বন্ধ করে দেয়। পরবর্তীতে অতিরক্তি পুলিশ গিয়ে কৌশলে তার কাছে থাকা অস্ত্রগুলো চায় এবং আত্মসমর্পণ করতে বলে। এতে সে একটি অস্ত্র জমা দিলেও তার কাছে রেখে দেয় বড় একটি ধারালো হাসুয়া।
পরে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে গেলে তার আক্রমণে চার পুলিশ আহত হয়। পুলিশ এ সময় আত্মরক্ষার জন্য রাবার বুলেট ছুঁড়লে মিলন হোসেন আহত হয়। তাকে উদ্ধার করে চারঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পরে পুলিশ ওই বাড়ি থেকে এক বস্তা ফেন্সিডিল, একটি রামদা, একটি বটি, একটি ধারালো হাসুয়া, ইয়াবা খাওয়ার সরঞ্জমসহ আরো ৮০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করে। মিলনের আক্রমণে আহতরা হলেন-বাঘা থানার সাব-ইন্সপেক্টর লুৎফর রহমান, নুরুন নবী, রেজাউল করীম, মাসুদ ইকবাল ও স্থানীয় ভানুকর গ্রামের শরিফ উদ্দিন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
এ বিষয়ে বাঘা থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, মিলন হোসেন একজন তালিকাভুক্ত মাদক ব্যাবসায়ী। সে ফেন্সিডিল চালান দেয়ার প্রস্তুতির সময়ে তাকে আটক করতে গিয়ে ৪ পুলিশসহ স্থানীয় এক ব্যক্তি আহত হয়েছে এসময় আত্মরক্ষার্থের পুলিশের ছোঁড়া রাবাট বুলেটে মিলনও আহত হয়েছে। তাকে চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ