বাণিজ্য মেলায় চলছে ভ্যাট ফাঁকির মহৌৎসব!

আপডেট: জানুয়ারি ২২, ২০১৭, ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


এবারের ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় চলছে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) ফাঁকির মহৌৎসব। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্র বলছে, মেলায় অংশ নেয়া প্রায় ৭০ শতাংশ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ভ্যাট ফাঁকি দিচ্ছে। আজ শনিবার মেলার ২১তম দিন হলেও অনেকে ভ্যাট দিয়েছেন মোটে ৩/৪ দিনের। বড় প্রতিষ্ঠানগুলো ইলেকট্রনিক ক্যাশ রেজিস্টার রক্ষা করলেও সব পণ্য বিক্রির হিসাব সেখানে অন্তর্ভুক্ত করছে না। ছোট দোকানগুলো ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে হিসাব রাখছে, তারাও সব হিসাব বইতে লিখছে না। যতোটুকু রাখছে তার ওপরে ৪ শতাংশ হারে ভ্যাট পরিশোধ করার কথা থাকলেও সেটুকু পরিশোধ করছেন না। ফলে গত ২০ দিনে আদায় হয়েছে মাত্র এক কোটি টাকা। অথচ মেলা থেকে ভ্যাট আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ কোটি টাকা। এদিকে আজ শনিবার সোনালী ব্যাংকের বুথে ভ্যাট পরিশোধ করতে আসা জিনাস ট্রেডিংয়ের কর্মী হাবীবুর রহমান জানান, প্রতিদিন তারা এক হাজার টাকা করে ভ্যাট দেন। তবে শুক্রবারের জন্য আরো দেড় হাজার টাকা বেশি পরিশোধ করতে বলা হয়েছে।
এনবিআরের এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, বেশির ভাগ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান যারা মেলায় এসেছেন তারা ভ্যাট ফাঁকি দিচ্ছেন। ফাঁকির পর্যায়টা চরমে দাঁড়িয়েছে। কেউ কেউ ২-৩০০ টাকা ভ্যাট দিচ্ছে। প্রতিদিনের ভ্যাট পরেরদিন পরিশোধের নির্দেশ থাকলেও তা মানছে না। ২০ দিনের মধ্যে কেউ কেউ দিয়েছেন মাত্র ২-৩ দিনের। সূত্র জানায়, গত ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত ভ্যাট আদায় ছিলো ৫০ লাখ টাকা। ২০ তারিখ পর্যন্ত সেটা দাঁড়িয়েছে এক কোটি ৬ লাখ ৪ হাজার ৫৩ টাকা। পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে এনবিআরের সিনিয়র কর্মকর্তারা প্রতিদিন সকাল থেকে মেলা প্রাঙ্গণে অস্থায়ী কার্যালয়ে বসছেন। যারা ভ্যাট পরিশোধ করতে আসছে তাদের নথিপত্র যাচাই করে ভ্যাট নিয়ে নির্দেশনা দিচ্ছেন।
পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, মেলায় অংশ নেয়া লুবান লেদার গত ২০ দিনে ৮০০ টাকা ভ্যাট দিয়েছে। একইভাবে আপন এইচএএস ২০ দিনের বিক্রির ওপরে মাত্র ৩ দিনের ভ্যাট দিয়েছে দেড় হাজার টাকা। আরেকটি প্রতিষ্ঠান বেস্ট অ্যালুমিনিয়াম ভ্যাট দিয়েছে ১১ দিন। এসব অনিয়মের কারণে শনিবার লুবানকে ২০ হাজার, আপন এইচএএসকে ১০ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে বিভিন্ন অংকের জরিমানা করেছে এনবিআর। সংস্থাটি শুক্র ও শনিবার এবং অন্যান্য ছুটিরগুলোতে বেশি বিক্রির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ব্যবসায়ীদের অতিরিক্ত ভ্যাট দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে। শুক্রবারের জন্য সেটা এক হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত নির্ধারিত ছিল।-প্রতিদিনের সংবাদ