বিচারে হস্তক্ষেপ করায় বিচারপতির আত্মহত্যার চেষ্টা

আপডেট: অক্টোবর ৬, ২০১৯, ১:২৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


জ্যেষ্ঠ বিচারকরা একটি মামলার বিচারে হস্তক্ষেপ করায় আদালতেই বুকে গুলি করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন থাইল্যান্ডের এক বিচারক। দেশটির দক্ষিণের শহর ইয়ালার একটি আদালতে খানাকর্ন পিঞ্চনা নামের ওই বিচারপতি এ কাণ্ড ঘটিয়েছেন।
ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, প্রমাণের অভাবে একটি হত্যা ও অস্ত্র মামলায় পাঁচ জনকে মুক্তির আদেশ দেন বিচারপতি খানাকর্ন পিঞ্চনা।
আত্মহত্যা চেষ্টার আগে বিচারপতি পিঞ্চনার দেয়া একটি বিবৃতি সামজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। এতে তিনি অভিযোগ করেছেন, জ্যেষ্ঠ বিচারপতিরা তাকে রায় পরিবর্তনের নির্দেশ দিয়েছিলেন। তারা তিন আসামিকে মৃত্যুদণ্ড ও দুজনকে কারাদণ্ড দিতে বলেছিলেন।
বিচারপতি পিঞ্চনা বলেন, ‘এই মুহূর্তে দেশের সব নিম্ন আদালতের বিচারপতির সঙ্গে আমার মতোই আচরণ করা হচ্ছে। আমি আমার পদের শপথ রক্ষা করতে পারছি না। অসম্মানের সঙ্গে বেঁচে থাকার চেয়ে আমি মরে যাওয়াকেই বেছে নিচ্ছি।’
থাইল্যান্ডের বিচার বিভাগের এক কর্মকর্তা অবশ্য ব্যাংকক পোস্টকে জানিয়েছেন, বিচারপতি পিঞ্চনা ব্যক্তিগত কারণে মানসিক চাপে ছিলেন। এ কারণেই তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন।
অবশ্য বিরোধী দল ফিউচার ফরোয়ার্ড পার্টির মহাসচিব পিয়াবুতর সায়েঙ্কানক্কুল জানান, বিচারপতি পিঞ্চনা আদালতের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকেই কথা বলছিলেন।
স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বিচারপতি পিঞ্চনার অবস্থা সংকটমুক্ত। তাকে ইয়ালা হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি