বেতন বাড়ছে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে, ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

আপডেট: নভেম্বর ৬, ২০১৯, ১২:৫৪ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সংগৃহীত

বেতন বাড়ছে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মীদের। বেতন বাড়ছে আংশিক সময়ের শিক্ষক এবং অতিথি অধ্যাপকদেরও। ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দফতর আয়োজিত এক সভায় মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী এ কথা ঘোষণা করেছেন। আংশিক সময়ের শিক্ষকদের অবসরকালীন প্রাপ্যও বাড়ানো হচ্ছে বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন জানিয়েছেন।
ইউজিসি-র (বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন) সংশোধিত বেতনক্রম অনুযায়ীই এ রাজ্যের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, শিক্ষক এবং শিক্ষাকর্মীদের নতুন বেতন কাঠামো স্থির করা হল বলে মুখ্যমন্ত্রী এ দিন জানান। ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে নতুন কাঠামো অনুযায়ী বেতন দেওয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। তবে ২০১৬ সাল থেকে এই বৃদ্ধিকে কার্যকর হিসেবে ধরা হবে। তাই শেষ চারটি অর্থবর্ষের প্রতিটিতেই ৩ শতাংশ করে বেতন বৃদ্ধি ধরে নিয়ে আগামী বছরের প্রথম দিন থেকে নতুন হারে বেতন দেওয়া শুরু হবে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানান।
এ রাজ্যের কলেজগুলিতে এখন আংশিক সময়ের শিক্ষক হিসেবে যাঁরা কাজ করছেন, তাঁরা মূলত তিনটি শ্রেণিতে বিভক্ত। সপ্তাহে পাঁচ দিনই পড়ান, এমন শিক্ষকও রয়েছেন। সপ্তাহে নির্দিষ্ট কয়েকটি দিন পড়ান, এমন কিছু শিক্ষক রয়েছে। আর রয়েছেন অতিথি অধ্যাপকরা, যাঁরা নির্দিষ্ট সংখ্যক ক্লাস নেন। যাঁরা সপ্তাহে দু’তিন দিন পড়ান আর যাঁরা অতিথি অধ্যাপক হিসেবে নির্দিষ্ট সংখ্যক ক্লাস নেন, তাঁদের কাজের পরিসর, বেতন কাঠামো বা সুযোগ-সুবিধার মধ্যে ফারাক কমই ছিল। এ দিন মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পরে বেতন বৃদ্ধির নিরিখে তিন শ্রেণিই একই বন্ধনীতে চলে এল।
আংশিক সময়ের শিক্ষক এবং অতিথি অধ্যাপকদের বেতন ৫ হাজার টাকা করে বাড়ানোর কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। যিনি এত দিন ২০ হাজার টাকা পেতেন, ২০২০-র ১ জানুয়ারি থেকে পাবেন ২৫ হাজার টাকা। যিনি পেতেন ২৫ হাজার, তাঁর বেতন বেড়ে হবে ৩০ হাজার টাকা। জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।
আংশিক সময়ের শিক্ষক এবং অতিথি অধ্যাপকদের অবসরকালীন প্রাপ্তিও বাড়ছে। অবসরের সময়ে তাঁরা এককালীন ৩ লক্ষ টাকা করে পাবেন বলে আগে জানানো হয়েছিল। তা বাড়িয়ে ৫ লক্ষ টাকা করা হচ্ছে বলে এ দিন মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন।
বেতন বৃদ্ধির ঘোষণার পরে মুখ্যমন্ত্রী এ দিন বলেন, ‘‘কেউ কেউ কেন্দ্রের সমান টাকা দাবি করছেন। কিন্তু কেন্দ্র ও রাজ্যের বেতন কাঠামো আলাদা। আমাদের সরকার গরিবের সরকার। যতটুকু পেরেছি, চেষ্টা করেছি।’’