বৈশাখী ভাতা ঈদ বোনাসসহ ৩ মাসের বেতন বকেয়া || ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন ৪ হাজার অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মচারী

আপডেট: জুন ২০, ২০১৯, ১২:২৩ পূর্বাহ্ণ

নওগাঁ প্রতিনিধি


পোস্ট অফিসের মাধমে পেনশন (বেতন) নেয়া পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় ৪ হাজার অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মচারী ঈদের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। বৈশাখী ভাতা, ঈদ বোনাসসহ ৩ মাস যাবত পেনশন (বেতন) না পাওয়ায় তারা মানবেতর জীবন যাপন করছেন বলে জানা গেছে।
ভুক্তভুগি সূত্রে জানা গেছে, পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় ৪ হাজার অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মচারী বিভিন্ন স্থানের পোস্ট অফিসের মাধমে পেনশন (বেতন) গ্রহণ করেন। বৈশাখী ভাতা ও ঈদ বোনাসসহ গত ৩ মাস যাবত এসব রেল কর্মকর্তা-কর্মচারীরা পেনশন (বেতন) না পাওয়ায় তারা পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।
এই অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বৈশাখী ভাতা ও দীর্ঘ ৩ মাস যাবত বেতন ও ঈদ বোনাস না পাওয়ায় এবার ঈদুল ফিতরের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।
রেল সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ঐতিহ্যবাহী সান্তাহার রেলওয়ে জংশনের প্রায় ৪ শ অবসরপ্রাপ্ত রেল কর্মচারী সান্তাহারের পোস্ট অফিসে বেতন গ্রহণ করেন। তারা বৈশাখী ভাতা, ঈদ বোনাসসহ ৩ মাস যাবত পেনশন (বেতন) পাননি।
সান্তাহারের রেলওয়ের নিরাপত্তাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত প্রহরী আবদুস ছামাদ বলেন, আমরা বৈশাখী ভাতা পাইনি এবং ৩মাস যবত বেতন এমনকি ঈদ বোনাসও পাইনি। আমদের সংসার চলছেনা, ছেলে মেয়েদের পড়াশোনার খরচ দিতে পারছি না, এতে ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার ক্ষতি হচ্ছে।
রেলওয়ের সান্তাহার আই ডাবলুর অবসরপ্রাপ্ত খালাসী হাফিজার রহমান বলেন, পোস্ট অফিসে সহজেই পেনশন পাব আশা করে সেখানে পেনশন চালু করেছি কিন্তু সেখান থেকে সঠিক সময় পেনশন পাচ্ছি না সংসারও চলছে না। মাত্র কয়েক দিন আগে ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হয়। এদিন সবার ঘরে আনন্দ থাকলেও আমাদের ঘরে আনন্দ ছিল না।
সান্তাহার স্টেশন মাস্টার রেজাউল করিম ডালিম বলেন, পোস্ট অফিসের গাফিলতির কারণে অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারিরা সময়মত পেনশনের টাকা পাচ্ছেন না।
এ বিষয়ে রাজশাহী প্রধান পোষ্ট অফিসের এপিএম মনিরা পারভীন মুঠোফোনে বলেন, এ ক্ষেত্রে পোস্ট অফিসের কোন গাফিলতি নেই। রেলওয়ে সংশ্লিষ্ট দফতর সময় মত টাকা দিতে না পারায় আমরা প্রতি মাসের টাকা পাঠাতে পারি না। টাকা আমাদের হাতে আসা মাত্র আমরা স্ব স্ব পোস্ট অফিসের শাখায় পাঠিয়ে দেই।
রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক একেএম শহিদুল ইসলাম বলেন, রেলওয়ে রাজশাহী অঞ্চলের এফএন্ডসিও ও অতিরিক্ত এফএন্ডসিও না থাকায় এ ধরনের জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে। তবে বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ