ভাগ্নে হত্যায় মামার ফাঁসির আদেশ

আপডেট: জুলাই ১৭, ২০১৭, ১:০৩ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


দণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামিকে আদলত থেকে কারাগারে নেয়া হচ্ছে-সোনার দেশ

রাজশাহীতে চাঞ্চল্যকর আল আমিন হত্যা মামলায় তার সৎ মামা আবদুল মালেকের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। ওই মামলায় আরেক আসামি মালেকের মামাতো ভাই জাহাঙ্গীর হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানাও করেন আদালত। গতকাল রোববার দুপুরে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শিরীন কবিতা আখতার জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় দেন।
দণ্ডিত আব্দুল মালেক নগরীর রাজপাড়ার মোল্লাপাড়া এলাকার মৃত এসাহাক আলীর ছেলে এবং জাহাঙ্গীর জেলার পবা উপজেলার সরিষাকুড়ি গ্রামের শামসুজ্জোহার ছেলে। রায় ঘোষণাকালে আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন তারা।
নিহত আল আমিন নগরীর মোল্লাপাড়া এলাকার আব্দুল ওহাবের ছেলে। তিনি জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের জেলা কমিটির সদস্য ছিলেন। আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁশুলি এন্তাজুল হক বাবু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ৫ আগস্ট মোল্লাপাড়া এলাকায় তারাবির নামাজ পড়ে মসজিদ থেকে বের হলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আল-আমিনের ওপর হামলা চালান মালেক ও জাহাঙ্গীর। পূর্ব শত্রুতার জেরে চালানো এ হামলায় ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান আল-আমিন।
এ ঘটনায় ওই দিন রাতে মালেক ও জাহাঙ্গীরকে আসামি করে নগরীর রাজপাড়া থানায় একটি হত্যামামলা দায়ের করেন নিহত আল-আমিনের বাবা আব্দুল ওহাব। এ মামলায় মোট ১৫ জনকে সাক্ষি করা হয়। তবে আদালত পাঁচজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষেই এ রায় ঘোষণা করেন।
বাদিপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট মুন্না সাহা। আর আসামিপক্ষে ছিলেন, অ্যাডভোকেট একরামুল হক।
এ রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন নিহত আল-আমিনের স্বজন এবং শ্রমিক সংগঠনের নেতারা। নিহতের ছোট ভাই রাফিয়াত ইসলাম বাবু বলেন, ‘রায়ে আমরা সন্তষ্ট। তবে আমরা চাই দ্রুত এ রায় বাস্তবায়ন করা হোক। রাষ্ট্রের কাছে এখন এটিই প্রত্যাশা।’

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ