মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনিতে পাথর উত্তোলনে সর্বোচ্চ রেকর্ড

আপডেট: মার্চ ১২, ২০১৯, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

পার্বতীপুর প্রতিনিধি


দিনাজপুরের পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনিতে গত শনিবার একদিনে তিন শিফটে ৬ হাজার ৪৭ মেট্রিক টন পাথর উত্তোলন করে রেকর্ড করেছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জার্মাানীয়া টেস্ট কনসোর্টিয়াম (জিটিসি)। খনি থেকে দৈনিক পাথর উত্তোলনের নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা সাড়ে ৫ হাজার মেট্রিক টন। লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে ৫শ’ ৪৭ মেট্রিক টন পাথর উত্তোলন করেছে।
খনি সুত্রে জানা গেছে, মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনি থেকে দৈনিক (তিন শিফটে) ৫ হাজার ৫শ’ মেট্রিক টন পাথর উত্তোলনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে গত ২০০৭ সালের ২০ মে বাণিজ্যিকভাবে পাথর উত্তোলন শুরু হয়। ২০১৪ সালে জিটিসি খনির দায়িত্বভার গ্রহণের পর খনি উন্নয়নের পাশাপাশি পাথর উৎপাদনকে গুরুত্ব দিয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে তিন শিফটে পাথর উত্তোলন শুরু করে। বর্তমানে দৈনিক তিন শিফটে পাথর উত্তোলন করে প্রতি মাসে ১ লাখ ২৫ হাজার মেট্রিক টন ছাড়িয়েছে। দৈনিক ৬ হাজার মেট্রিক টনের অধিক পাথর উত্তোলনের এই রেকর্ড খনিটিকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করবে বলে মনে করা হচ্ছে।
ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জার্মাানীয়া-টেস্ট্র কনসোর্টিয়াম (জিটিসি)’র নির্বাহী পরিচালক জাবেদ সিদ্দিকী বলেন, উৎপাদনের এই লক্ষমাত্রায় পৌঁছানোয় তাদের অধীনে কর্মরত খনি শ্রমিকদের বেতন ও ওভার টাইমের সঙ্গে উৎপাদন বোনাসও প্রদান করছে। ফলে উৎসাহ নিয়ে কাজ করছে প্রায় সাড়ে ৭শ’ খনি শ্রমিক, অর্ধশতাধিক বিদেশী খনি বিশেষজ্ঞ, অর্ধশত দেশি প্রকৌশলীসহ দেড় শতাধিক কর্মকর্তা কর্মচারী।
মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনিতে উত্তোলিত পাথরের মজুদ ও বিক্রির বিষয়ে জানতে চাইলে মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনির মহাব্যবস্থাপক (অপারেশন) আবু তালেব ফরাজী বলেন, মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনিতে উত্তোলিত পাথরের মজুদ রয়েছে বিভিন্ন সাইজের পাথর ও পাথরকুচি ৫ লাখ ৩০ হাজার মেট্রিক টন। এছাড়া প্রতিদিন গড়ে ৩ হাজার মেট্রিক টন পাথর সরবরাহ করা হয়ে থাকে এখান থেকে।