মন্ত্রিদের বেফাঁস কথা দায়িত্বশীলরা কেন দায়িত্বহীন?

আপডেট: আগস্ট ১০, ২০১৯, ১২:৩২ পূর্বাহ্ণ

বিএনপির সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরতাফ হোসেনের একটি উক্তিÑ ‘আল্লার মাল আল্লাই নিয়ে গেছে’ আড়াই দশক পরও এখনো আলোচনার বিষয়। সন্ত্রাসীদের গুলিতে পিতার কোলে এক শিশু নিহত হলে সাবেক ওই মন্ত্রী- এ ভাবেই সান্ত¦না দেন। তাঁর এই বক্তব্য ওই সময় সারা দেশে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। মন্ত্রীর দৈনতা, অযোগ্যতার বিষয়টিও সামনে আসে। এখনো ওই মন্ত্রীর উক্তি বিশেষ আলোচনায় মানুষের মুখে শোনা যায়।
ইদানিং ডেঙ্গু নিয়ে বর্তমান সরকারের মন্ত্রীরা যে ভাষায় কথা বলছেন তা তাদের অজ্ঞতা ও অযোগতাই প্রকাশ পাচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই ওই মন্ত্রী বেফাঁস কথা বলে তৃপ্ত হলেও দেশের মানুষ কিন্তু বেশ বিব্রত। একজন দায়িত্বশীল মন্ত্রীর কাছ থেকে দায়িত্বহীন কথা তারা শুনতে চায় না।
সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্যমতে, বঙ্গবন্ধু দারিদ্র্য বিমোচন ও পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বাপার্ড) আয়োজিত ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ বাস্তবায়নে বাপার্ডের করণীয় শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেন, দেশ উন্নত হচ্ছে বলেই বাংলাদেশে এই রোগ দেখা দিয়েছে। নিজের এই বক্তব্যের পক্ষে যুক্তিও দিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী; তার ভাষ্যমতে, ডেঙ্গুর জীবাণুবাহী এইডিস ইজিপ্টি ‘এলিট শ্রেণির’ মশা এবং তা বাংলাদেশ ছাড়াও সিঙ্গাপুর, ব্যাংককের মতো শহরে দেখা দিয়েছে।
এর আগে ডেঙ্গুর জন্য দায়ী এইডিস মশার বংশবিস্তার নিয়ে এক মন্তব্যের জন্য সমালোচিত হয়েছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।
গত ২৫ জুলাই ঢাকা মেডিকেল কলেজে এক সেমিনারে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছিলেন, “আমাদের দেশে হঠাৎ করে কেন এত ডেঙ্গু রোগী? একটি সিম্পল উত্তর আমার পক্ষ থেকে, সেটা হল-মশা বেশি, এইডিস মশা বেশি। সে মশাগুলি অনেক হেলদি মশা এবং সে মশাগুলি অনেক সফিস্টিকেটেড মশা। তারা শহরে, বাড়িতে থাকে- এটিই উত্তর। যেহেতু প্রডাকশন বেশি… মশা বাড়তেছে।
প্রাণঘাতী ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে যখন হাজার হাজার মানুষ ধুঁকছে তখন মন্ত্রীদের এমন লাগামহীন কথাবার্তা দেশের মানুষকে বিব্রত করছে যেমন তেমনই মন্ত্রীরা নিজেদের অযোগ্যতা-অজ্ঞতা প্রকাশ করে মানুষকে হাস্যরসের খোরাক যোগাচ্ছেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সতর্ক করছেন যে, ‘কথা না বলে কাজ করুন।’ কিন্তু কে শোনে কার কথা। মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীরা একের পর বেফাঁস কথা বলেই চলেছেন। ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত পরিবার কিংবা ডেঙ্গু রোগের কারণে যেসব পরিবার তাদের স্বজন হারিয়েছেন তাদের জন্য মন্ত্রীদের এই কথা পরিহাসের মতই শোনায়। এটা মানুষের অসহায়ত্ব নিয়ে মস্করা করারই সামিল। মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীরা নিজেদেরকে, পদের মর্যাদাকে ছোট করছেন সেটাও তারা ভাবছেন বলে মনে হয় না। স্বাস্থ্যমন্ত্রী যখন অনায়াসে বলছেন যে, রোহিঙ্গাদের মতোই বাড়ছে এডিস মশা। এই কথা যে, একটা জাতিসত্তাকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করা- তা মন্ত্রীরা বোঝেন না এটা ভাবতেই সাধারণ মানুষের কষ্ট হওয়ার কথা।
যারা দায়িত্বশীল পদে থাকেন, উপরোন্তু জনগণের প্রতিনিধি হিসেবে- তারা দায়িত্বশীল কথা বলবেন সেটাই স্বাভাবিক, এটাই প্রত্যাশিত। তারা যেভাবে বলছেন সেটা অন্যদের জন্য অপমান-অবমাননার। দায়িত্বশীলদের দায়িত্ব নিয়েই কথা বলা সমীচীন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ