মহাদেবপুরে কলেজছাত্রীকে পাচার করতে গিয়ে ভুয়া সাংবাদিক গ্রেফতার

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৭, ১২:২৬ পূর্বাহ্ণ

মহাদেবপুর প্রতিনিধি


নওগাঁর মহাদেবপুরে চাকরি দেয়ার নামে কলেজছাত্রীকে পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়ার সময় এক ভুয়া সাংবাদিককে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছে স্থানীয় জনতা। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলা শহরের মাছচত্তর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।
পুলিশ জানায়, উপজেলা সদরের দুলালপাড়ার মৃত বছির উদ্দীনের ছেলে আবদুল আজিজ মোবাইল ফোনে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে উত্তরগ্রাম ইউনিয়নের উত্তগ্রাম পূর্বপাড়ার মৃত মজিবর রহমানের মেয়ে ও নওগাঁ ডিগ্রি কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী লাকি খানমকে (২০) মুক্তখবর পত্রিকার উপজেলা পর্যায়ে ক্রাইম রির্পোটার নিয়োগ দেয়া হবে বলে জানায়। বেকারত্বের অভিশাপ থেকে বের হতে ভুয়া সাংবাদিক আবদুল আজিজের প্রস্তাবে রাজি হয় লাকি খানম। লাকি খানমকে প্রলোভন দেয়া হয় ওই পত্রিকার ক্রাইম রির্পোটার নিয়োগ পাওয়ার পর তাকে প্রতিমাসে ১০ হাজার টাকা বেতন দেয়া হবে। লাকি খানমের কাছ থেকে পত্রিকার ক্রাইম রির্পোটারে পরিচয়পত্র বাবদ ১২ হাজার টাকাও দাবি করে ওই ভুয়া সাংবাদিক। এছাড়াও লাকি খানমকে রাজশাহী এবং ঢাকায় সাংবাদিকতার ওপর ট্রেনিং নিতে পর্যায়ক্রমে তিন মাস থাকতে হবে বলে জানায় আবদুল আজিজ। পত্রিকার পরিচয়পত্র বাবদ টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে আবদুল আজিজ নিজেই ওই খরচের টাকা বহন করবে বলে মোবাইলে লাকি খানমকে জানায় এবং মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মহাদেবপুর ব্যাসস্ট্যান্ডে আসতে বলে। তার কথা মতো লাকি খানম স্থানীয় বাসস্ট্যান্ডে যায় এবং তার আত্মীয়স্বজনকে ওই সাংবাদিকের কথাগুলো জানায়। এসময় লাকি খানমের স্বজনরা স্থানীয় সাংবাদিকদের ডেকে আবদুল আজিজকে বিভিন্ন প্রশ্ন করেন। এক পর্যায়ে আবদুল আজিজ স্বীকার করেন তিনি কোন সাংবাদিক নন। তিনি ভুল স্বীকার করে স্থানীয় লোকজনের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এসময় স্থানীয় লোকজন তাকে গণধোলাই দিয়ে থানা পুলিশের সোপর্দ করে। পুলিশ ধারণা করছে সাংবাদিক বানানো নাম করে লাকি খানমকে কোন অসৎ উদ্দেশ্যে রাজধানী ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো।
এ ঘটনায় মহাদেবপুর থানায় মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে ভুয়া সাংবাদিক আবদুল আজিজের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, আবদুল আজিজের বিরুদ্ধে এ রকম অভিযোগসহ নানা ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড চালানোর অভিযোগ রয়েছে।