মান্দায় ৬৫ লাখ টাকা নিয়ে উধাও হওয়া গাক কর্মকর্তা গ্রেফতার

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮, ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ

মান্দা প্রতিনিধি


নওগাঁর মান্দায় ৬৫ লাখ টাকা নিয়ে উধাও হওয়া বেসরকারি সংস্থা ‘গ্রাম উন্নয়ন কর্ম’ (গাক) এর শাখা ব্যবস্থাপক মাহবুবুর রহমানকে (৩২) অবশেষে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উধাও হওয়ার ২৯ দিন পর গতকাল শনিবার সকালে বগুড়ার কাহালু রেলস্টেশন এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মাহবুবুর রহমান বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার মাঝগ্রামের আহম্মদ আলীর ছেলে বলে জানা গেছে।
মামলার বাদি গাক এর নওগাঁ জোনাল ম্যানেজার রকিবুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারকৃত মাহবুবুর রহমান গাক এর মান্দা শাখায় ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। একই শাখায় মাঠকর্মি হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন সৈয়দ নুর আলম (৩০) ও বজলুর রশিদ (৩১)। শাখায় কর্মরত থাকা অবস্থায় তারা গত ৩১ জুলাই পর্যন্ত মাঠ পর্যায়ে সদস্যদের মাঝে ঋণ বিতরণ না করে ও ভূয়া ঋণ বিতরণ দেখিয়ে ৬৫ লাখ ৪২ হাজার ৯৯৩ টাকা আত্মসাত করেছেন।
মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, ভূয়া ঋণ বিতরণের মাধ্যমে ৪৫ লাখ ৪৫ হাজার ৩১০ টাকা, বিতরণকৃত ঋণের আংশিক গ্রহণের মাধ্যমে ৫ লাখ ৯২৭ টাকা, সদস্যদের কাছ থেকে অগ্রিম কিস্তি আদায়ের ২ লাখ ৭৫ হাজার ৫৬৭ টাকা, সংস্থার নীতিবহির্ভুত এফডিআর এর ৯ লাখ টাকা, গ্রাহকের সঞ্চয় ৩ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন খাত সৃষ্টির মাধ্যমে ৬৫ লক্ষাধিক টাকা আত্মসাত করেন।
মামলার বাদি আরো জানান, গত ২ আগস্ট ওই শাখায় অভ্যন্তরীণ অডিট চলাকালে শাখা ব্যবস্থাপক মাহবুবুর রহমান, মাঠকর্মি সৈয়দ নূর আলম ও বজলুর রশিদ আত্মগোপন করেন। পরবর্তীতে একাধিকবার নোটিশ জারি করা হলেও তারা আর কর্মস্থলে যোগদান করেন নি। অবশেষে গত ১৮ আগস্ট উল্লিখিত ৩ ব্যক্তির বিরুদ্ধে মান্দা থানায় ৬৫ লক্ষাধিক টাকা আত্মসাতের মামলা দায়ের করা হয়।
মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহবুব আলম জানান, গ্রেফতারকৃত গাক কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান একাধিক ব্যক্তির নামে ভূয়া ঋণ দেখিয়ে উত্তোলনকৃত টাকায় দাদন ব্যবসা শুরু করেন। তার সঙ্গে উপজেলা সদর প্রসাদপুর বাজারের একাধিক দাদন ব্যবসায়ী জড়িত। এসব তথ্য উদঘাটনে আসামিকে আদালতে পাঠিয়ে রিমান্ড আবেদন করা হবে বলে জানান তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ