মিশরে ৭ হাজার বছরের প্রাচীন শহরের সন্ধান

আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০১৬, ১০:১১ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক
মিশরে সাত বছরের প্রাচীন একটি শহরের সন্ধান পেয়েছেন প্রতœতাত্ত্বিকরা।
নীল নদের তীরে ‘সেতি দ্য ফার্স্টের মন্দির’-এর পাশে আবিষ্কৃত প্রাচীন এ শহরে পাওয়া গেছে ঘরবাড়ি, হাতিয়ার, তৈজষপত্র ও কবর। এগুলো দেখে প্রতœতাত্ত্বিকরা বলছেন, শহরটি সমৃদ্ধ ছিল। সভ্যতার সব আয়োজন রয়েছে এখানে।
প্রাচীন এ শহরে ১৫টি সমাধির সন্ধান পাওয়া গেছে। যেগুলো দেখে স্পষ্ট হয়, এখানে যারা ঘুমিয়ে আছেন তারা সমাজের উচ্চবিত্তের লোক ছিলেন।
বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন, এ শহরে তৎকালীন সময়ের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের বসবাস ছিল। সমাধি নির্মাতা ছিলেন এখানে। প্রাচীন মিশরীয় সভ্যতার শুরুর দিকে শহরটির সৌন্দর্যবর্ধন করা হয়ে থাকতে পারে।
প্রতœতত্ত্ববিদরা বিশ্বাস করছেন, প্রাচীন এ শহরের সন্ধান মিশরের পর্যটন খাতকে চাঙা করতে ভূমিকা রাখবে। ২০১১ সালে প্রেসিডেন্ট হোসনি মোবারকের পতনের পর দেশটির পর্যটন খাত বিপর্যয়ের মুখে পড়ে এবং এখনো তা কাটিয়ে উঠতে পারেনি।
নতুন আবিষ্কৃত শহরে সেই সময়ের সভ্যতার নিদর্শন ভবনের ধ্বংসাবশেষ, মাটির পাত্রের ভাঙা অংশ, ধাতব ও পাথরের তৈরি হাতিয়ার পেয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে বিবিসির মধ্যপ্রাচ্যবিষয়ক বিশ্লেষক অ্যালান জনস্টন বলেছেন, আবিষ্কারের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো বৃহৎ সমাধিগুলো।
মিশরের প্রাচীন শহর আবিডোসের কাছে আবিষ্কৃত শহরটিতে সেই সময় শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও সমাধি নির্মাতা বাস করতেন, যারা আবিডোসে বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত ছিলেন বলে মনে করছেন প্রতœতাত্ত্বিকরা। প্রাচীন মিশরের রাজধানী ছিল আবিডোস। এখানে বহু পুরোনো সমাধি, প্রার্থনালয় ও স্থাপনা রয়েছে।
প্রাচীন একটি শহর আবিষ্কারের খবর এমন সময় এল, যখন মিশর তার পর্যটন খাত ঢেলে সাজাতে জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। রাজনৈতিক সংঘাতে সংকটের মুখে পড়ে দেশটির পর্যটন আয়।
ইজিপ্ট ইন্ডিপেনডেন্ট কর্মকর্তাদের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, মিশরের পুরাতত্ত্ব মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতœতাত্ত্বিক মিশন শহরটি আবিষ্কার করেছে, বিদেশি প্রতœতাত্ত্বিকরা নন।
গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরের সঙ্গে আবিষ্কৃত শহরের খুব বেশি ছবি পাওয়া যায়নি। বলা হয়েছে, আবিডোসের লুক্সর শহরের পাশেই এর অবস্থান।
তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন, রাইজিংবিডি