মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানিতে ভ্যাট সুবিধা বাতিল

আপডেট: September 25, 2017, 12:48 am

সোনার দেশ ডেস্ক


বাতিল হলো মূলধনী যন্ত্রপাতি বা যন্ত্রাংশ আমদানিতে প্রযোজ্য মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট/মূসক) অব্যাহতি সুবিধা।
নতুন আদেশ অনুসারে শিল্প বা কলকারখানার জন্য মূলধনী যন্ত্রপাতি বা যন্ত্রাংশ আমদানিতে পুরো ভ্যাট দিতে হবে। তবে মূলধনী যন্ত্রপাতি বা যন্ত্রাংশের উপর আরোপনীয় আমদানি শুল্ক ও সম্পূরক শুল্কের ক্ষেত্রে পূর্বের আদেশ অনুযায়ী মওকুফ বা অব্যাহতি সুবিধা বহাল রয়েছে।
অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমানের সই করা নতুন আদেশ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। সম্প্রতি জারি হওয়া ওই আদেশ ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর ধরা হয়েছে।
আদেশে বলা হয়েছে, ১৯৯১ সালের মূল্য সংযোজন কর আইনের ধারা ১৪ এর ১ উপ-ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে সরকার ও অত্র বিভাগের ১ জুলাই ২০১৭ তারিখের ভ্যাট অব্যাহতির প্রজ্ঞাপন এতদ্বারা বাতিল করা হলো।
এ বিষয়ে এনবিআর সূত্রে জানা যায়, গত ১ জুলাই জারি করা প্রজ্ঞাপনে (এস. আর. ও. নং-২২৮-আইন/২০১৭/৭৭৮-মূসক) সরকার মূলধনী যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশে আমদানি পর্যায়ে এগুলোর উপর আরোপণীয় সমুদয় মূল্য সংযোজন কর হতে শর্তসাপেক্ষে অব্যাহতি প্রদান করা হলো। তবে বাণিজ্যিক আমদানিকারক কর্তৃক যন্ত্রাংশ আমদানির ক্ষেত্রে ওই আদেশ প্রযোজ্য হবে না। অর্থাৎ নতুন আদেশ দ্বারা পুরাতন এ আদেশ বাতিল করা হয়েছে।
গত ১ জুলাই জারি করা আদেশে আমদানি শুল্ক অব্যাহতির বিষয়ে বলা হয়েছে, মূলধনী যন্ত্রপাতি বা যন্ত্রাংশের বা উভয়ের উপর আরোপনীয় আমদানি শুল্ক, যে পরিমাণে মূল্যভিত্তিক এক শতাংশের অতিরিক্ত হয় সেই পরিমাণ অব্যাহতি প্রদান করা হবে। অন্যদিকে প্রযোজ্য সমূদয় ভ্যাট বা মূসক ও সম্পূরক শুল্ক যদি থাকে তা শর্ত সাপেক্ষে অব্যাহিত প্রদান করা হলো।
শর্ত হলো- মূলধনী যন্ত্রপাতি বা যন্ত্রাংশ বা উভয়, এক বা একাধিক ঋণপত্রের অধীনে একাধিক চালানে আমদানির ক্ষেত্রে প্রথম পণ্য চালান আমদানির বিল অব এন্ট্রি দাখিলের তারিখ হতে এক বছরের মধ্যে সকল যন্ত্রপাতি বা যন্ত্রাংশ বা উভয়ের আমদানি সম্পন্ন করতে হবে। উন্নত প্রযুক্তির বৃহদায়তন শিল্পের যন্ত্রপাতি ও যন্ত্রাংশ উক্ত এক বছর সময়ের মধ্যে আমদানি করতে না পারলেও আমদানিকারক কর্তৃক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এনবিআর প্রয়োজনে অনধিক তিন বছর পর্যন্ত সময় বৃদ্ধি করতে পারবে।
এদিকে এক হিসেবে দেখা গেছে, গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরের ১১ মাসে (জুলাই-মে) শিল্প স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি আমদানির জন্য প্রায় ৫ বিলিয়ন (৫০০ কোটি) ডলারের ঋণপত্র (এলসি) খোলা হয়েছে। আর এলসি নিষ্পত্তি হয়েছে সাড়ে ৪ বিলিয়ন ডলারের। যা ২০১৫-১৬ অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে মূলধনী যন্ত্রপাতি আমদানি বেড়েছে ২২ দশমিক ২২ শতাংশ। নিস্পত্তির পরিমাণ বেড়েছে ৪৪ দশমিক ২১ শতাংশ। রাইজিংবিডি