মোদীকে ৫৬ ইঞ্চির অন্তর্বাস পাঠিয়ে প্রতিবাদ জওয়ানের স্ত্রীর

আপডেট: মে ১৪, ২০১৭, ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



পাকিস্তানের সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন যেন অভ্যাসে পরিণত হয়েছে৷একের পর এক জওয়ানের উপর হামলা চলছে৷এমনকী চরম অমানবিকতার পরিচয় দিয়ে পাকিস্তান ভারতীয় জওয়ানের মু-চ্ছেদও করে নিয়ে যাচ্ছে৷এই ঘটনার প্রতিবাদেই অভিনব কাজ করলেন এক প্রাক্তন জওয়ানের স্ত্রী৷প্রধানমন্ত্রীকে ৫৬ ইঞ্চির অন্তর্বাস পাঠিয়েই প্রতিবাদ জানালেন তিনি৷সম্প্রতি সে ঘটনার সে ভিডিও ছড়িয়েছে নেটদুনিয়ায়৷
ঘটনা হরিয়ানার ফতেবাদের৷সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে খবর, প্রাক্তন সেনা ধরমবীর সিংয়ের স্ত্রী সুমন সিং এই কাজ করেছেন৷প্রধানমন্ত্রীকে তিনি ক্ষোভ জানিয়ে একটি চিঠিও লিখেছেন৷সেইসঙ্গে একটি অন্তর্বাসও জমা দিয়েছেন জেলা সৈনিক বোর্ডে৷সাধারণত ৫৬ ইঞ্চি বুকের ছাতিকে সাহসিকতার পরিচয় হিসেবেই দেখা হয়৷প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সম্পর্কে সে উপমা বারবারই ফিরে এসেছে বিভিন্ন সময়ে৷বিশেষত সার্জিক্যাল স্ট্রাইক বা নোটবন্দির মতো বলিষ্ঠ সিদ্ধান্ত তিনি যেভাবে নিয়েছেন, তাতে তাঁর সাহসিকতার প্রশংসা করতে পরিচিত এই রূপকটিকেই বিভিন্ন সময়ে ফিরিয়ে এনেছেন নেতা-মন্ত্রীরা৷প্রশংসার সেই অস্ত্রই এবার ব্যুমেরাং করে তাঁকে ফিরিয়ে দিলেন এই জওয়ানের স্ত্রী৷
কিন্তু এরকম একটা কাজে প্রধানমন্ত্রীকে কি অপমান করা হল না? উত্তরে ধরমবীরের পাল্টা প্রশ্ন, সেনারা কি প্রতিনিয়ত অপমানিত হচ্ছেন না? তাঁর দাবি, প্রধানমন্ত্রী আশ্বস্ত করেছিলেন, সেনাদের সঙ্গে আগে যে ব্যবহার হয়েছে তা যাতে দ্বিতীয়বার না হয়, তা নিশ্চিত করবেন তিনি৷কিন্তু বর্তমানে যা হচ্ছে তা আগের থেকেও খারাপ৷চিঠিতে তাঁর স্ত্রী সুমনও ঠিক একই কথা জানিয়েছেন৷তাঁর দাবি, ক্ষমতায় আসার আগে ভারতীয় জনতা পার্টির দাবি ছিল যে, এরপর কোনও পাক সেনা ভারতকে আক্রমণ করার হিম্মত দেখাবে না৷কিন্তু এখন কী ঘটছে? আক্রমণ তো হচ্ছেই৷উল্টে জওয়ানদের মাথা কেটে নিয়ে যাচ্ছে পাক সেনা৷ সুমনের চিঠির যে ভিডিও ছড়িয়েছে, তাতে তিনি কাশ্মীরের ঘটনার কথাও উল্লেখ করেছেন৷যেখানে হাতে অস্ত্র থাকা সত্ত্বেও বিক্ষোভকারীদের ইট খেয়ে মুখ বুজে ফিরতে হচ্ছে জওয়ানকে৷চিঠিতে তিনি জানিয়েছেন, হেমরাজের শিরশ্ছেদের ঘটনার পর যেভাবে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, তাতে মনে হয়েছিল আর কাউকে এই পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যেতে হবে না৷পাকিস্তান ভারতীয় সেনার উপর আক্রমণের আগে দশবার ভাববে৷ কিন্তু তাঁর প্রশ্ন কোথায় কী? দিল্লির মন্ত্রীরা শুধু নিন্দা করেই দায়িত্ব সারছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন ওই জওয়ানের স্ত্রী৷
প্রাক্তন জওয়ান জানাচ্ছেন সাম্প্রতিক বেশ কিছু ঘটনায় ক্ষুব্ধ সুমন৷ স্বামীকে তিনি জানিয়েছেন, নারীরা তাঁদের সন্তান, ভাই বা স্বামীকে সীমান্তে পাঠাচ্ছেন মাতৃভূমি রক্ষার জন্য৷তাঁদের মাথা কেটে নিয়ে যাওয়ার জন্য নয়৷যে প্রতিশ্রুতি নির্বাচনের আগে দেওয়া ছিল, তা এখন কোথায়? কোথায় ৫৬ ইঞ্চি ছাতির সাহসিকতা? জওয়ান নিগ্রহের প্রতিবাদেই তাই অন্তর্বাস পাঠিয়েছেন সুমন৷তাঁর দাবি, এই পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে সেনাকে নিয়মের বাধ্যবাধকতা থেকে মুক্ত করুন প্রধানমন্ত্রী৷মুক্তহস্ত হলেই সেনা এর সমুচিত জবাব দেবে বলেও দাবি তাঁর৷
১৯৯১ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত ভারতীয় সেনায় কাজ করেছেন সুমনের স্বামী ধরমবীর৷অংশ নিয়েছেন একাধিক অপারেশনে৷রাষ্ট্রপতি মেডেলও পেয়েছেন৷অবসর গ্রহণের পর বেশ কিছুদিন আপের পর্যবেক্ষক হিসেবেও কাজ করেন তিনি৷যদিও এখন সে পদেও আর তিনি নেই৷প্রশাসনের উপর ক্ষোভ থাকলেও সন্তানকে সেনায় নিয়োগের কথাই ভাবছে এই দম্পতি৷- সংবাদ প্রতিদিন