মোহনপুর জুড়ে আউশে ইঁদুর || বিপাকে চাষিরা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৯, ১:১৪ পূর্বাহ্ণ

মোস্তফা কামাল, মোহনপুর


কেশরহাটে আউশ খেতে ইঁদুরের আক্রমন ঠেকাতে টাঙানো কাকতাড়ুয়া ও পলিথিন-সোনার দেশ

মোহনপুরে আউশের মাঠজুড়ে ইঁদুরের আক্রমণ দেখা দিয়েছে। কৃষি উপসহকারিদের পরামর্শ কাজে আসছেনা বলে ইঁদুরের কাছে অসহয়াত্বের কথা জানিয়েছেন কৃষকরা। প্রতিকারের উপায় হিসেবে নতুন নতুন নানা ধরনের নির্দেশনা দিচ্ছেন উপজেলা কৃষি বিভাগ।
সরোজমিন দেখা গেছে, কৃষি সম্ভাবনায় পরিচিত মোহনপুর উপজেলার ফসলের মাঠজুড়ে এখন আউশ খেতের সমাহার। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের হিসেবে কৃষকরা চলতি মৌসুমের শুরুতে অনুকূল আবহাওয়ার প্রায় ৮ হাজার হেক্টর জমিতে আউশ ধানের রোপণ করেন। রোপণের এক সপ্তাহের মধ্যে ভারী বর্ষণ ও ফসলি জমিতে পুকুর খননের কারণে পানি নিস্কাশন হতে না পেরে জলাবদ্ধতায় কিছু জমির খেত ডুবে বিনস্ট হয়। পরবর্তীতে শুকনো আবহাওয়া তৈরি হলে বাঁকি জমির ধানগুলো খুব ভাল হয়। একাধিক কৃষক জানান, এখন প্রতিটি বিলে ধানের শীষ দেখা দেয়ার কারণে খেতে জায়াগা নিয়েছে ইঁদুর। সচেতন কৃষকরা ইঁদুর দমনের চেষ্টা করলেও অনেকেই আবার মাঠেই নামেনি। সম্মিলিত ভাবে ভাবে ব্যবস্থা না নেয়ার জন্য ইঁদুর দমন করা সম্ভব হচ্ছে না বলে মনে করেন তারা।
উপজেলার উল্লেখযোগ্য, কেশরহাট পৌর এলাকার মগরা বিলের আউশ চাষি মাজেদুর রহমান জানিয়েছেন, ধান যথেষ্ট পরিমাণে ভাল হয়েছে। খরার কারণে পোকার আক্রমন কম হলেও বেশিরভাগ খেতে ইঁদুর লেগেছে। ধান খেতে কাক তাড়ুয়া বানিয়ে দেয়ার পাশাপাশি কলা ও মান গাছ লাগানো হয়েছে। লেপথুয়েন ও কীটনাশক দেয়া হয়েছে। কৃষি অফিসারদের পরামর্শ অনুযায়ী সবকিছুই পদক্ষেপ নেয়া হলেও কিছুই মানছে না ইঁদুর।
মৌগাছি ইউনিয়নের বিদ্যাধরপুর বিলের সামেদ আলী নামের একজন কৃষক বলেন, প্রতিবছর ধান বের হতে লাগলেই ইঁদুর জায়গা নেয়। এবারেও ধানে থোঁড় আসছে এজন্য ইঁদুর আক্রমণ হয়েছে। যে যেমন ভাবে পারে ইঁদুর দমনের চেষ্টা করছি। বিএসদের পরামর্শ অনুযায়ী চেষ্টা করা হচ্ছে তবে কাজে আসছে না।
জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবীদ রহিমা খাতুন আউশ খেতে ইঁদুরের আক্রমণের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ইঁদুর প্রতিরোধে কৃষকদের সচেতন থাকতে হবে। প্রতিটি মাঠ ঘুরে উপসহকারিরা কৃষক পর্যায়ে পরামর্শ দিয়ে আসছেন। খেতে বিষ প্রয়োগের পাশাপাশি পলিথিন টাঙানো, তালপাতা টাঙানোসহ কাক তাড়ুয়া টাঙানোর পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। ইঁদুর নিধন সম্ভব না হলেও নিয়ন্ত্রণে থাকবে বলে আশাবাদী তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ