রংপুরের সাবেক মেয়র ঝন্টু আর নেই

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৮, ১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের কারণে ২৬ দিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর মারা গেছেন রংপুর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু।
রোববার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে তার একমাত্র ছেলে রিয়াজ আহমেদ হিমন জানান।
রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ঝন্টুর বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর।
গত ৩১ জানুয়ারি রাতে স্ট্রোক করলে ঝন্টুকে রংপুর নগরীর সেন্ট্রাল ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়।
তখন ওই হাসপাতালের চিকিৎসক তোফায়েল হোসেন ভুঁইয়া বলেছিলেন, “মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের কারণে ঝন্টু সাহেবের বাম হাত ও পা অনুভূতিহীন হয়ে গেছে।”
পরদিন তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় ল্যাব এইড হাসপাতালে আনা হয়েছিল। ল্যাব এইড থেকে পরে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যাল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
২০১২ সালের ২০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত রংপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সদস্য সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু। গত ২১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়ে লড়লেও জাতীয় পার্টির প্রার্থীর কাছে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন তিনি।
সিটি করপোরেশনের মেয়র ছাড়াও ঝন্টু রংপুর-১ (গঙ্গাচড়া) আসন থেকে সংসদ সদস্য, রংপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এবং রংপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান ছিলেন।
শরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টুর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী রংপুর পৌরসভার সাবেক এই মেয়রের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেন।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ