রাজশাহীতে অব্যাহত রয়েছে তীব্র শীত

আপডেট: জানুয়ারি ৬, ২০১৮, ১:০২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


শুক্রবারও তীব্র শীত অনুভুত হয়েছে সোনার দেশ

রাজশাহীতে গত তিন দিন ধরে অব্যাহত রয়েছে শৈতপ্রবাহ। তীব্র শীতের কারণে জবুথবু হয়ে পড়েছে মানুষ। বাড়িয়ে দিয়েছে মানুষের দুর্ভোগ। বেলা অবধি কুয়াশা থাকার কারণে কাজ পাচ্ছেন না শ্রমজীবী মানুষ। সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছে ফুটপাতে থাকা ছিন্নমূলেরা।
গতকাল শুক্রবারও রাজশাহীতে সর্বনি¤œ তাপমাত্রা ছিলো আট দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগের দিন ছিলো আট ডিগ্রি সেলসিয়াস। বুধবার সর্বনি¤œ তাপমাত্রা ছিলো ১০ দশমিক পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
আবহাওয়া অফিসের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে পাওয়া গেছে, গত কয়েকদিন ধরে তাপমাত্রা দ্রুততার সাথে কমছে। গত কয়েকদিনে তাপমাত্রা কমেছে ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। একইসাথে সর্বনি¤œ ও সর্বোচ্চ তাপমাত্রার ব্যবধান কমে আসছে।
রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের ইনচার্জ আশরাফুল আলম জানান, দশ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে তাপমাত্রা নামলে সাধারণত শৈত্য প্রবাহ হয়। সেই হিসেবে এখন মৃদু শৈত্য প্রবাহ বইছে বলা যায়। এই শৈত্য প্রবাহ এ মাসেই মাঝারি শৈত্য প্রবাহে রূপ নেবে। আগামি কয়েকদিন একই আবহাওয়া বজায় থাকবে বলে মনে করেন তিনি।
প্রতিবছর শীতে ঠা-াজনিত রোগের প্রকোপ বাড়ে। শিশুরা বিশেষ করে ডায়রিয়া, আমাশয়, ব্রঙ্কাইটিস, জ্বর, সর্দি, কাশি, নিউমোনিয়া আক্রান্ত রোগী বেশি ভর্তি হয় হাসপাতালগুলোতে। তবে এবছর এখনো খুব বেশি রোগী ভর্তি হয়নি হাসপাতালে। শুধুমাত্র ভাইরাল ডায়রিয়ার রোগী হাসপাতালে বেশি ভর্তি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ছানাউল হক মিঞা।