রাজশাহীতে ‘অভিবাসী চাকরি মেলা’য় প্রাথমিক বাছাই চিনে চাকরির তালিকায় শতাধিক গ্রাজুয়েট

আপডেট: নভেম্বর ১৭, ২০১৯, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি


অভিবাসী চাকরি মেলায় আয়োজকরা সোনার দেশ

চাকরিপ্রাথীদের বিপুল উতসাহ-উদ্দিপনার মধ্য দিয়ে রাজশাহীতে অনুষ্ঠিত হলো দিনব্যাপি অভিবাসী চাকরি মেলা। মেলায় চাইনিজ ডেলিগেটদের উপস্থিতিতে সরাসরি সাক্ষাৎকারে বিশে^র সবচেয়ে অর্থনৈতিক শক্তিধর দেশ চীনের জিয়াংশি প্রদেশের শিল্প এলাকা নামচাং শহরের প্রতিষ্ঠিত ওফিলম কোম্পানীতে চাকরির জন্য বাছাই করা রাজশাহী অঞ্চলের প্রায় শতাধিক গ্রাজুয়েট চাকরির জন্য প্রাথমিকভাবে চুড়ান্ত হয়েছেন। গতকাল শনিবার চীনে শিক্ষিত ও দক্ষ জনশক্তি পাঠানোর লক্ষ্যে সরকার অনুমোদিত রিক্রুটিং এজেন্সি সাইক ওভারসিজ এর উদ্যোগে দিনব্যাপি এ চাকরি মেলা অনুষ্ঠিত হয়।  সকাল ১১টায় রাজশাহীর সপুরাস্থ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে (টিটিসি) অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠিত এ মেলায় প্রধান অতিথি ছিলেন, অভিবাসন ও উন্নয়ন বিষয়ক সংসদীয় ককাসের চেয়ারম্যান মো. ইসরাফিল আলম এমপি। স্বাগত বক্তব্য দেন, সাইক ওভারসিজ ও সাইক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোহেলী ইয়াছমিন। প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান আবু হাসনাত মো. ইয়াহিয়ার সভাপতিত্বে মেলায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, জেলা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক পারভেজ রায়হান, রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের বরেন্দ্র গবেষণা যাদুঘরের পরিচালক প্রফেসর ড. আলী রেজা মো. আবদুুল মজিদ, রাজশাহী মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ নাজমুল হক, জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিসের সহকারী পরিচালক আবদুুল হান্নান, চায়নিজ প্রতিনিধি লু চ্যাংহ্যাং জ্যাকি, সাইক গ্রুপের উপদেষ্টা প্রকৌশলী মো. শামস উজ জামান, সাইক ওভারসীজ-এর পরিচালক নুরনবী সিদ্দিক সুইন প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন, প্রতিষ্ঠানটি প্রশাসনিক কর্মকর্তা এরশাদুল বারী।
প্রধান অতিথিতির বক্তৃতায় ইসরাফিল আলম বলেন, নিরাপদ অভিাবসন ও কর্মসংস্থানের জন্য সাইক ওভারসীজ এর কার্যক্রম নির্দিধায় প্রশংসার যোগ্য। দেশে বর্তমানে শিক্ষিত বেকারত্বের করুণ পরিসংখ্যান সেখান পরিত্রাণ পেতে ও যুবকদের বিদেশে কর্মসংস্থানের কোন বিকল্প নেই। সরকারও সেই লক্ষে কাজ করছে। চায়নার যে প্রতিষ্ঠিত কোম্পানী সাইক ওভারসীজের মাধ্যমে আমাদের তরুন শিক্ষিত জনশক্তিকে কর্মসংসস্থানের উদ্যোগ নিয়েছে তা প্রশংনীয়। মধ্যপ্রাচ্যসহ অন্য দেশগুলোর চেয়ে চীনে কর্মসংস্থান হবে নিরাপদ ও মানসম্মত।
অন্য বক্তারা সাইক ওভারসীজের উদ্যোগ স্বাগত জানিয়ে দেশের তরুণ শিক্ষিতদেও দেশে বেকার পরে না থেকে বিদেশে কর্মসংস্থানের আহবান জানান। এর আগে গতকাল সকাল থেকেই উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে চাকরিপ্রার্থীরা মেলায় অংশ টিটিসি প্রাঙ্গণে উপস্থিত হন।
মূলত ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে যারা ¯œাতক ডিগ্রি বা সমমানের পরীক্ষায় পাস করেছেন তারা দেশটিতে চাকরি নিয়ে যাওয়ার জন্য মেলায় সরাসরি সিভি জমা দিয়ে ইন্টারভিউ পর্বে অংশ নেন। এদের মধ্য থেকে প্রায় শতাধিক চাকরীপ্রার্থীকে বাছাই করা হয়। চীনের জিয়াংশি প্রদেশের ২টি কারখানার জন্য অপারেটর হিসেবে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন এসব গ্রাজুয়েটরা। পর্যায়ক্রমে দেশের বিভিন্ন জেলায় এমন মেলা আয়োজনের মাধ্যমে গ্রাজুয়েটদের বাছাই করা হবে। সেখানে উন্নত পরিবেশে থাকা-খাওয়া, মেডিকেল, ইন্স্যুরেন্সসহ লোকাল ট্রান্সপোর্ট কোম্পানি বহন করবে। বেতনও অনেক দেশের তুলনায় স্ট্যান্ডার্ড মানের। কাজের পরিবেশ অত্যন্ত চমৎকার। কায়িক পরিশ্রমের কোনো বিষয় নেই।
আয়োজন সম্পর্কে সাইক ওভারসিজের পরিচালক নূরনবী সিদ্দিক সুইন জানান, প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্প্রতি রাজশাহীসহ জেলায় জেলায় ‘‘সাইক ওভারসিজ” (আরএল ১৬৮৪) কে চাকরি মেলা আয়োজন করার অনুমতি প্রদান করে। এছাড়া জেলা প্রশাসন, টিটিসি ও জেলা জনশক্তি অফিস সার্বিক সহযোগিতা করছে। দেশের শিক্ষিত ও দক্ষ জনশক্তির বড় একটি অংশকে দেশের বাইরে সম্মানজনক কাজে পাঠানোর জন্য আমরা কাজ করছি। মেলায় চাইনিজ ডেলিগেটের কাছ থেকে চীনে গমনেচ্ছুকরা দেশটিতে কাজের পরিবেশ, থাকা-খাওয়াসহ নানাবিধ বিষয়ে সম্যক ধারণা পান। তাছাড়া সাইক ওভারসীজ এর র্উ্ধতন কর্তৃপক্ষ এরই মধ্যে কারখানা ও ডরমেটরিগুলো পরিদর্শন করে এসেছেন। খুব কম সময়ের মধ্যে চীন আমাদের দেশের জন্য বড় শ্রমবাজার হয়ে ঊঠবে বলে আশা করছি।