বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

রাবিতে রঙতুলির ছোঁয়ায় মুখর বঙ্গবন্ধু ছবিমেলা

আপডেট: December 8, 2019, 1:09 am

রাবি প্রতিবেদক


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আর্ট ক্যাম্পের শেষ দিনে তুলির আঁচড়ে বঙ্গবন্ধুকে তুলে ধরছেন এক শিল্পী সোনার দেশ

মায়াময় ¯িœগ্ধরুপ নিয়ে এসেছে হেমন্তের সকাল। দৃষ্টিসীমা পর্যন্ত আলোকজ্জ্বল অপূর্ব একটি সকাল তার অভাবনীয় সৌন্দর্য নিয়ে যেন অপেক্ষমান। গাছের নরম-কচি পাতার ফাঁকে ফাঁকে মিষ্টি রোদ আর সুনীল আকাশ যেন হাতছানি দিয়ে ডাকে।
সকালের প্রথম রোদের বর্ণচ্ছটায় গাছের পাতাগুলো খিলখিল করে হেসে ওঠার পাশাপাশি ঝলমল করে ওঠেছে নানান বর্ণের রঙ ও রঙতুলি। সময় অতিবাহিত হওয়ার পাশাপাশি সূর্যের মৃদু উত্তাপ ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। এই উত্তাপকে গায়ে মেখে নিয়েও একদল চিত্রশিল্পী রঙতুলির সাহায্যে রাঙিয়ে তুলছে ক্যানভাস। কেউবা জলরং দিয়ে হ্যান্ডমেট পেপারে বিভিন্ন চিত্র এঁকে প্রকাশ করছেন তাদের বর্ণিল শিল্পানুভূতি। এ দৃশ্য বঙ্গবন্ধু ছবিমেলা আর্টক্যাম্পের।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপনের লক্ষে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ প্রাঙ্গনে এ আর্টক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। গত শুক্রবার ‘পিতার ভাবনার সোনার বাংলা’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপি এ আয়োজন করে হাসুমণি’র পাঠশালা। গতকাল শনিবার এই আর্টক্যাম্প অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।
এদিন অনুষদ প্রাঙ্গন ঘুরে দেখা যায়, রাবি সহ দেশের বিভিন্ন বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অংশ নিয়েছে নগরী থেকে আসা স্থানীয় নানান বয়সের শিল্পীরাও। কেউ আঁকছেন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি, কেউ নৈসর্গিক কোনো দৃশ্য, কেউ বা আকঁছেন বর্ণিল অভিনব কিছু চিত্রকর্ম। সেই চিত্রকর্মগুলো কী অর্থ বহন করে একমাত্র শিল্প প্রেমিকরাই অনুভব করতে পারবেন। এক্সপেরিমেন্টাল এই চিত্রকর্মগুলোর মধ্যে একটি চিত্রের দিকে দৃষ্টি পড়ল। সেই চিত্রকর্মটি যার তুলির স্পর্শে প্রস্তুত হয়ে হয়েছে তিনি হলেন রাবি চিত্রকলা, প্রাচ্যকলা ও ছাপচিত্র বিভাগের অধ্যাপক বনি আদম। লাল সবুজ রঙের চিত্রকর্মটি কী অর্থবহন করেছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই চিত্রকর্মটি একদিকে রুপসি বাংলার লাল সবুজের রূপ সৌন্দর্যকে প্রকাশ করেছে, অন্যদিকে বাংলাদেশের পতাকাকে নির্দেশ করে।
বিভিন্ন শিল্পীদের আকাঁ ছবি দেখতে ভীড় জমিয়েছে অন্যান্য বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীসহ ক্যাম্পাসের বাইরে থেকে আসা দর্শনার্থীরা। এমন আয়োজনে মুগ্ধ হয়েছেন সবাই।
এর আগে, গত শুক্রবার সকালে রাবি উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান ছবিমেলার উদ্বোধন ঘোষণা করেন। এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘ছবি কথা বলে। যা অস্ত্র, ভাষা দিয়ে পারা যায় না, তা ছবি পারে। বঙ্গবন্ধু সারাজীবন যে পরিশ্রম করেছেন, দেশ ও মানুষের জন্য জীবনের অধিকাংশ জেলে অতিবাহিত করেছেন সেজন্য তিনি যুগ যুগ ধরে বেঁচে আছেন।’
অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, হাসুমণি’র পাঠশালার সভাপতি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য মারুফা আক্তার পপি, বিশেষ অতিথি সংসদ সদস্য প্রকৌশলী এনামুল হক, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়া, জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয়ের ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক জুনায়েদ হালিম, বিটিভির শিল্প বিভাগের পরিচালাক জাহিদ মোস্তফা, শিল্পী তরুণ ঘোষ, চারুকলা অনুষদের অধিকর্তা অধ্যাপক সিদ্ধান্ত শংকর তালুকদার, শিক্ষক-শিক্ষঅর্থী ও দর্শনার্থীরা। এসময় অতিথিগণ শিল্পীদের হাতে রঙতুলি ও ক্যানভাস তুলে দেন।
এছাড়াও বিকেল পাঁচটায় প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও সন্ধ্যা ছয়টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। গতকাল শনিবার মেলার দ্বিতীয় দিনে অংশগ্রহণকারী শিল্পীদের ছবি আঁকা প্রদর্শন করার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ